পুলিশ বলছে, গোলাগুলি পরিবারের দাবি ধরে নেওয়ার

প্রকাশ : ০২ ডিসেম্বর ২০১৬, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক
ADVERTISEMENT

যশোর-মাগুরা মহাসড়কের পাঁচবাড়িয়া এলাকায় এক যুবক নিহত হয়েছেন। পুলিশ বলেছে সে ‘দুই পক্ষের গোলাগুলিতে’ নিহত হয়েছেন। অপরদিকে ওই যুবকের স্বজনেরা বলেছেন ‘গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে বাড়ি থেকে ধরে নেওয়া’ হয়েছিল। এদিকে, গত বুধবার রাতে সিরাজগঞ্জে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক যুবক নিহত হয়েছেন। র‌্যাব বলেছে সে ডাকাত বাহিনীর প্রধান ছিলেন।

যশোর প্রতিনিধি জানায়, জেলার পাঁচবাড়িয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাছে বুধবার রাত ২টার দিকে দুই পক্ষের গোলাগুলির পর ওই যুবককে আহত অবস্থায় পাওয়া যায় বলে জানায় কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি ইলিয়াস হোসেন। তিনি বলেন, ‘পুলিশ গুলিবিদ্ধ যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।’ ওই যুবকের নাম মনিরুজ্জামান রিপন ওরফে রিপন হোসেন (২৮)। রিপনকে ‘দুর্র্ধষ সন্ত্রাসী’ উল্লেখ করে তার বিরুদ্ধে থানায় হত্যা, অস্ত্র, ডাকাতি, বিস্ফোরক ও ছিনতাইসহ ২১টি মামলা থাকার কথাও জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে রিপনের মামা শহিদুল ইসলাম যশোর সদর হাসপাতাল মর্গে ভাগ্নের লাশ শনাক্ত করেন। নিহত যুবক বেনাপোল বন্দর থানার ছোটআঁচড়া গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে। তার বাড়ি যশোরের শার্শা উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকা ছোট আঁচড়া গ্রামে। শহিদুল বলেন, ‘গতকাল (বুধবার) বিকালে রিপনকে আটক করে পুলিশ।’ নিহতের স্ত্রী শিরিন বকুলও বলেন, মামলায় জামিন নিয়ে বাড়ি ফেরার পর রিপনকে ‘গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে’ ধরে নেওয়া হয়েছিল। ওসি আরও জানান, ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটারগান, এক রাউন্ড গুলি ও একটি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।

রিপনের পরিবারের অভিযোগের বিষয়ে ওসি ইলিয়াস বলেন, ‘পুলিশ তাকে ধরে আনেনি।’

স্থানীয় সূত্র জানায়, নিহত রিপন বেনাপোল বন্দরের পণ্য চোর সিন্ডিকেটের হোতা। গত ১৬ নভেম্বর বেনাপোল বন্দরের পণ্য চুরির সময় আনসার সদস্যদের সাথে হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত আনসার সদস্য ফিরোজ হোসেন গত ২৫ নভেম্বর ঢাকায় মারা যান।

 

যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক এম আব্দুর রশিদ জানান, গুলিবিদ্ধ যুবককে হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়। তার মাথার ডানপাশে এক রাউন্ড গুলিবিদ্ধ হয়েছে।

সিরাজগঞ্জে বন্দুকযুদ্ধে ‘ডাকাত’ নিহত

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি জানায়, ডাকাতির প্রস্তুতি কালে সিরাজগঞ্জে র‌্যাবের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ‘ডাকাত বাহিনীর প্রধান’ দুলাল হোসেন (৪২) নিহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে ১টি পিস্তল, ১টি শাটারগান, ৭ রাউন্ড গুলি ও রামদা উদ্ধার করেছে র‌্যাব।

নিহত দুলাল হোসেন সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার সোমেশপুর গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে। র‌্যাবের তথ্য অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে হত্যা, ডাকাতি, ছিনতাই সহ বিভিন্ন থানায় নয়টি মামলা রয়েছে।

র‌্যার ১২ এর সিরাজগঞ্জের এএসপি হাসিবুল রহমান হাসিব জানান , গত বুধবার রাত ১০টায় কামাখন্দ উপজেলার ঝাঐল ওভার ব্রজের কাছে দুলাল ও তার সহযোগীরা ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল। র‌্যার সদস্যরা সেখানে অভিযান চালানোর এক পর্যায়ে তারা র‌্যাবকে লক্ষ করে গুলি ছোড়ে। এসময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছোড়ে। পরে সেখান থেকে দুলালের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় র‌্যার সদস্য রুস্তম আলী আহত হয়েছেন। তাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

"