আপিল আবেদন খারিজ

ইকবালের স্ত্রী-সন্তানদের গ্রেফতারে বাধা নেই

প্রকাশ : ২৮ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

আদালত প্রতিবেদক
ADVERTISEMENT

সম্পদের তথ্য গোপনের মামলায় আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য এইচ বি এম ইকবালের স্ত্রী মমতাজ বেগম, তাদের দুই ছেলে ও মেয়ের সাজা স্থগিত করে হাইকোর্টের দেওয়া রুল আপিল বিভাগে খারিজ হয়ে গেছে। এর ফলে ওই চারজনকে দেওয়া বিচারিক আদালতের দ- বহাল থাকল এবং আইনের দৃষ্টিতে তারা এখন পলাতক হওয়ায় তাদের গ্রেফতারে কোনো আইনগত বাধা নেই বলে জানিয়েছেন দুদকের আইনজীবী। হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে দুদকের আবেদনের শুনানি করে প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ গতকাল রোববার এই আদেশ দেন। আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন খুরশীদ আলম খান। ইকবাল পরিবারের পক্ষে ছিলেন এ এফ হাসান আরিফ ও কামরুল হক সিদ্দিকী। এইচ বি এম ইকবাল বেসরকারি প্রিমিয়ার ব্যাংকের চেয়ারম্যান। তার ছেলে মোহাম্মদ ইমরান ইকবাল ওই ব্যাংকের একজন পরিচালক। আরেক ছেলে মঈন ইকবাল ও মেয়ে নওরীন ইকবালও একসময় পরিচালনা পর্ষদের সদস্য ছিলেন।

বিগত সেনানিয়ন্ত্রিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় ২০০৭ সালের ২৭ মে ইকবাল, তার স্ত্রী ও সন্তানদের বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগে এ মামলা করে দুদক।

পরের বছর ১১ মার্চ বিশেষ জজ আদালত এ মামলার রায়ে ইকবালকে ১৩ বছরের কারাদ- এবং ৫০ লাখ টাকা জরিমানা করেন। তার স্ত্রী ও সন্তানদের তিন বছর করে কারাদ- এবং ১ লাখ টাকা করে অর্থদ- দেওয়া হয়। ওই বছর ১৭ সেপ্টেম্বর ইকবালের ভাইয়ের আবেদনে হাইকোর্ট এ মামলায় জজ আদালতের দেওয়া রায়ের কার্যকারিতা স্থগিত করেন। ওই সাজা কেন বাতিল করা হবে না জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়।

জরুরি অবস্থার সময় জারি করা বহু মামলা ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ?্যপ্রণোদিত’ বিবেচনায় বা অন?্য কারণে বাতিল বা খারিজ হয়ে যায়। ইকবালের আবেদনে ২০১১ সালের ১৮ জানুয়ারি হাইকোর্ট তাকে এ মামলা থেকে খালাস দেন।

হাইকোর্টের ওই আদেশের বিরুদ্ধে দুদক আপিল করলেও ২০১৫ সালে আদালতকে জানায়, তারা আর মামলা চালাতে চায় না। এরপর দুদক দীর্ঘদিন চুপচাপ থাকলেও সম্প্রতি ইকবালের পরিবারের সদস?্যদের সাজা স্থগিতের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে দুদকের আবেদনটি গতি পায়।

"