কুমিল্লায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

প্রকাশ : ২৬ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

কুমিল্লা প্রতিনিধি
ADVERTISEMENT

কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার কালিরবাজার ইউপির উজিরপুর পাথরিয়া গ্রামে খাদিজা বেগম নামে এক গৃহবকূর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমেক হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ। গৃহবধূর স্বজনরা দাবি করেছেনÑ স্বামী ও শ^শুরবাড়ির লোকজন তাকে হত্যা করেছে। তবে পুলিশ বলেছে, এ ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। এদিকে এই মুত্যুকে কেন্দ্র

করে এলাকায় ছড়াচ্ছে রহস্যের জাল।

জানা যায়, ২০১০ সালে জেলার আদর্শ সদর উপজেলার উজিরপুর পাথরিয়া গ্রামের মৃত মোছলেম মিয়ার ছেলে শরিফুল ইসলামের সঙ্গে জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার হরশপুর গ্রামের মৃত. সানাউল্লার মেয়ে খাদিজা বেগমের বিয়ে হয়। এ দম্পত্তির কন্যাসন্তান রয়েছে। শুক্রবার দুপুরে ওই গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যুর খবর পেয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই নুরুল আলম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে লাশ উদ্ধার করে বিকালে ময়নাতদন্তের জন্য কুমেক হাসপাতালে পাঠান। এ ঘটনার পর থেকে স্বামী ও তার স্বজনরা পালাতক রয়েছে।

এদিকে গৃহবধূর চাচা শফিউল্লাহ অভিযোগ করে বলেন, স্বামী শরিফুল ইসলাম যৌতুকের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে স্ত্রী খাদিজা বেগমকে নানাভাবে নির্যাতন করে আসছিল। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় মাতবররা বেশ কয়েক দফা সালিশ বৈঠকও করেছে। তিনি জানান, ৬ মাস আগে খাদিজা ২য় দফায় কন্যাসন্তানের জন্ম দেওয়ার পর থেকেই তার ওপর শারীরিক নির্যাতন বেড়ে যায়। স্বামী ও তার স্বজনরা খাদিজাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে বলেও অভিযোগ করা হয়। এ ঘটনায় শফিউল্লাহ বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করে। স্থানীয় মাতবর হাজী আবদুুল মহি জানান, লাশ দেখে মনে হচ্ছে এটা একটা হত্যাকান্ড।

কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই নুরুল আলম জানান, থানায় অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলে হত্যার কারণ নির্র্ণয় করা যাবে।

 

 

"