মদ্যপানের সময় বচসা সহকর্মীকে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশ : ২৬ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি
ADVERTISEMENT

রাজশাহীর তানোরে চোলাইমদ পান করার সময় সহকর্মীদের সঙ্গে কথাকাটাকাটির চরম পর্যায়ে শহিদুল ইসলাম (৩৫) নামের এক ধান কাটা শ্রমিককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ হত্যার সঙ্গে জড়িতরা শহিদুলের সহকর্মী বলে জানা গেছে।

গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতের কোনো একসময়ে তাকে হত্যা করা হয়। গতকাল শুক্রবার সকালে স্থানীয়রা তার লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন। নিহত শহিদুল ইসলামের বাড়ি উপজেলার বাঁধাইড় ইউপির বহড়ইল গুচ্ছগ্রামে। তার বাবার নাম মোজাম্মেল হক।

নিহতের মাতা সাফেরা বিবি জানান, ছেলে শহিদুল ইসলাম ও একই গ্রামের বাসিন্দা আফজালসহ ময়েন বেশ কয়েক দিন ধরে ধান কাটার কাজ করছিল। তার ছেলেকে হত্যা করার জন্য আফজাল ও ময়েন চোলাইমদ পান করান। এরপর তাকে দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাথায় ব্যাপক কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যান তারা। তিনি আরো জানান, বাড়ি থেকে প্রায় কোয়াটার কিলোমিটার দূরে হরিশপুর গভীর নলকূপের পাশে নিয়ে তার ছেলে শহিদুলকে হত্যা করা হয়েছে। ছেলেকে হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে ফাঁসির দড়িতে ঝুলিয়ে মৃত্যু কার্যকরের দাবি করেন তিনি।

তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মির্জা আবদুস সালাম জানান, স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নিহত শহিদুলের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরো জানান, চোলাইমদ পান করার সময় শহিদুল ও তার সহকর্মীদের সঙ্গে দ্বন্দ্বে হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় নিহত শহিদুলের মা সাফেরা বিবি বাদী হয়ে আফজাল ও ময়েনসহ অজ্ঞাতনামা চারজনকে আসামি করে তানোর থানায় হত্যা মামলা করেন। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

 

"