ঢাকাসহ তিন জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

প্রকাশ : ১৩ আগস্ট ২০১৬, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক
ADVERTISEMENT

রাজধানীর কদমতলী, খুলনার সুন্দরবন ও ঝিনাইদহের হরিণাকু-ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিনজন নিহত হয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার শেষরাতে বন্দুকযুদ্ধের এসব ঘটনা ঘটে।

রাজধানীতে বন্দুকযুদ্ধে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো মোবাইল ফোনের খুদেবার্তায় জানানো হয়। এতে বলা হয়, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে কদমতলী থানা এলাকায় বন্দুকযুদ্ধে ওই ব্যক্তি নিহত হন। তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। র‌্যাবের দাবি, নিহত ব্যক্তি মাদক ব্যবসায়ী। র‌্যাব-১০ এর অধিনায়ক জাহাঙ্গীর হোসেন মাতুব্বর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

খুলনা অফিস জানায়, কয়রা উপজেলায় সুন্দরবনের শাকবাড়িয়া এলাকায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে বনদস্যু জোনাব বাহিনীর সদস্য আনারুল সানা নিহত হয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৪টায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, নিহত আনারুলের বিরুদ্ধে ৬টি ডাকাতি ও একটি হত্যাসহ মোট ১০টি মামলা রয়েছে। জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার ওসি শিকদার আলী আক্কাছ জানান, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে বনদস্যু আনারুলকে কয়রা বাসস্ট্যান্ড থেকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তাকে নিয়ে অস্ত্র উদ্ধার এবং তার সহযোগীদের গ্রেফতারের জন্য সুন্দরবনের শাকবাড়িয়া এলাকার নাপিতের খালে অভিযান চালানো হয়। এ সময় তার সহযোগীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। গুলি বিনিময়ের একপর্যায়ে আনারুল গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন।

ঘটনাস্থল থেকে একটি বন্দুক, ৫ রাউন্ড গুলি, দুটি দা ও ৭ জোড়া স্যান্ডেল উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় ৩ জন পুলিশ কনস্টেবল আহত হয়েছে বলে দাবি করেছে পুলিশ। নিহত আনারুল কয়রা উপজেলার মহারাজপুর গ্রামের জিহাদ সানার ছেলে। ঝিনাইদহ প্রতিনিধি জানায়, হরিণাকু- উপজেলায় র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক সন্ত্রাসীর মৃত্যু হয়েছে। নিহত সন্ত্রাসীর নাম শহিদুল ইসলাম পচা (৪০)। গত বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ২টার দিকে ফলশি গ্রামের বটতলায় এ ঘটনা ঘটে।

র‌্যাবের ঝিনাইদহ ক্যাম্প কমান্ডার মেজর মনির আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, কয়েক দুর্বৃত্ত বটতলায় সন্দেহজনক ঘোরাফেরা করছিল। এ সময় র‌্যাবের টহল গাড়ি সেখানে গেলে তারা গুলি ছোড়ে। র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছুড়লে শহিদুল ইসলাম নিহত হন। পরে অন্যরা পালিয়ে যান।

শহিদুল ইসলাম পচার বাড়ি উপজেলার পার-দখলপুর গ্রামে।

"