এক মাস পরও ‘ইলিশ-চাল’ পাননি ১০ জেলে

প্রকাশ : ০২ ডিসেম্বর ২০১৬, ০০:০০

পিরোজপুর প্রতিনিধি
ADVERTISEMENT

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার দাউদখালী ইউনিয়নের প্রজনন মৌসুমের মা ইলিশ সংরক্ষণে অবরোধের একমাস অতিবাহিত হলেও দুস্থ কার্ডধারী জেলেরা ভিজিএফের চাল পায়নি। ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের হারজী নলবুনিয়া গ্রামের ১০ জেলে এই চাল বঞ্চিত হয়। এ ব্যাপারে চাল বঞ্চিত জেলেরা উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীরা। তাদের অভিযোগ, চেয়ারম্যান ওই চাল আত্মসাৎ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের ১২ অক্টোবর থেকে ২ নভেম্বর ২২ দিন পর্যন্ত জেলেরা নদীতে মা ইলিশ ধরা বন্ধ রাখে। এ অবরোধ চলাকালীন সময় মাছ ধরায় বিরত কার্ডধারী দুস্থ জেলেদের মাঝে সরকার জনপ্রতি ২০ কেজি করে ভিজিএফের বিশেষ চাল বিতরণ করে। অবরোধের মধ্যে ওই চাল বিতরণের কথা থাকলেও সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল হক রাহাত খান কতিপয় জেলেদের মাঝে চাল বিতরণ করলেও ওই ওয়ার্ডের ১০ জন জেলেদের মাঝে রহস্যজনক কারণে চাল বিতরণ করেনি।

উপজেলার দাউদখালী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড হারজী নলবুনিয়া গ্রামের চাল না পাওয়া জেলেরা অভিযোগ করেন, ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে বারবার যাওয়ার পরও তাদের চাল দেওয়া হয়নি। চেয়ারম্যান ওই চাল আত্মসাৎ করেছেন।

ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল হক রাহাত খান তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, চাল না পাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। তারপরেও আমি বর্তমানে ঢাকায় আছি, এলাকায় এসে বিষয়টি খতিয়ে দেখব।

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এসএম আজাহারুল ইসলাম জানান, উপজেলা চেয়ারম্যানের মাধ্যমে চাল বঞ্চিত জেলেদের অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম ফরিদ উদ্দিন বলেন, আমি অভিযোগের কথা শুনেছি, তদন্ত করে ব্যবস্থা নেব।

"