ইয়াবা দিয়ে যুবককে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেল দুই পুলিশ

‘ভুল তথ্য দেওয়ায়’ সোর্স গ্রেফতার

প্রকাশ : ৩০ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি
ADVERTISEMENT

সিংগাইর উপজেলার জামির্ত্তা ইউনিয়নের মধুরচর গ্রামে পকেটে ইয়াবা দিয়ে মোজাফফর (২৪) নামের নিরপরাধ এক রিকশাচালককে মামলায় ফাঁসাতে গিয়ে জনতার হাতে ধরা পড়েছেন দুই পুলিশ সদস্য। স্থানীয় লোকজন মারধরের পর তাদের আটকে রাখলে পরে সিংগাইর থানার এসআই সজিবুর রহমান ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম রাজুর মধ্যস্থতায় তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। লাঞ্ছিত দুই পুলিশ সদস্য হলেন সিংগাইর থানার এএসআই ফরহাদ ও কনস্টেবল জাহাঙ্গীর। এদিকে এ ঘটনার মূল হোতা পুলিশের সোর্স ইয়াবা কারবারি কবির হোসেনকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মধুরচর-জামির্ত্তা রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, চিহ্নিত ইয়াবা কারবারি ও পুলিশের সোর্স চান্দহর ইউনিয়নের ওয়াইজনগর গ্রামের মৃত কলিমুদ্দিনের ছেলে কবির হোসেন এএসআই ফরহাদ ও পুলিশ সদস্য জাহাঙ্গীরকে নিয়ে রিকশাচালক মোজাফফরকে ধরে ইয়াবা বিক্রির অভিযোগে হাতকড়া পরান। এ সময় কবির নিজের কাছে থাকা কয়েকটি ইয়াবা ট্যাবলেট মোজাফফরের পকেটে ঢুকিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন। ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে আশপাশের লোকজন বিষয়টি টের পেলে দুই পুলিশ সদস্য ও সোর্স কবিরকে ঘিরে ফেলে। বিক্ষুব্ধ জনতা তাদের মারধর করে আটকে রাখে।

পরে সিংগাইর থানার এসআই সজিবুর রহমান ও স্থানীয় জামির্ত্তা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম রাজু ঘটনাস্থলে এসে লোকজনকে বুঝিয়ে মোজাফফরকে ছেড়ে দিয়ে দুই পুলিশকে উদ্ধার করেন। একই সঙ্গে কবির হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী রামকান্তপুর গ্রামের বাদল হোসাইন বলেন, ‘গ্রেফতারকৃত কবির এলাকার চিহ্নিত ইয়াবা কারবারি। পুলিশের সোর্স পরিচয়ে তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ নিরপরাধ মানুষকে মামলার হুমকি-ধমকি দিয়ে টাকা-পয়সা হাতিয়ে নিতেন।’ তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে বলে তিনি জানান।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে লাঞ্ছিত এএসআই ফরহাদ হোসেন বলেন, ‘সোর্স কবির হোসেনের ভুল তথ্যে অভিযান চালাতে গিয়ে এ ঘটনা ঘটেছে। তাই সোর্সকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’

এ ব্যাপারে সিংগাইর থানার ওসি খোন্দকার ইমাম হোসেন বলেন, ভুল তথ্য দেওয়ার কারণে ও মাদকসেবী হিসেবে কবিরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে দুই পুলিশ সদস্যের লাঞ্ছিত হওয়ার কথা জিজ্ঞেস করলে বিষয়টি এড়িয়ে যান তিনি।

"