রাসিককে বর্ধিত কর প্রত্যাহারে সাত দিনের আল্টিমেটাম

প্রকাশ : ২৭ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

রাজশাহী অফিস
ADVERTISEMENT

বর্ধিত হোল্ডিং ট্যাক্সসহ অন্যান্য ট্যাক্স প্রত্যাহারের জন্য রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) কর্তৃপক্ষকে সাত দিনের সময় দিয়েছে নাগরিক অধিকার সংরক্ষণ সংগ্রাম পরিষদ। দাবি মানা না হলে কঠোর আন্দোলনে নামার হুমকি দিয়েছে নেতৃবৃন্দ। গতকাল শনিবার বিকেল ৪টায় আয়োজিত এক মানববন্ধন থেকে এই হুমকি দেওয়া হয়। নগরের আরডিএ মার্কেটের সামনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে নগরের বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সাধারণ মানুষের আয়ের কথা বিবেচনা না করে সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ অবৈধভাবে নগরবাসীর ওপর করের বোঝা চাপিয়ে দিয়েছে। সিটি করপোরেশনের যিনি মেয়রের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি জনগণের ভোটে নির্বাচিত নন। তাই তিনি জনগণের কথা চিন্তা না করে মানুষকে ভোগান্তির মধ্যে ফেলেছেন। বক্তারা অভিযোগ করেন, সিটি করপোরেশনকে নাগরিকরা ট্যাক্স দিচ্ছে কিন্তু সিটি করপোরেশন থেকে কোনো সেবা পাচ্ছে না। মশার অত্যাচারে মানুষ বসে থাকতে পারছে না, বেওয়ারিশ কুকুরের অত্যাচারে রাস্তায় চলাচল করতে পারছে না। মানুষকে সেবা দেওয়ার প্রতি মনোযোগ না দিয়ে অবৈধভাবে ট্যাক্সের বোঝা চাপিয়ে দিচ্ছে।

মানববন্ধনে ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হারুন অর রশিদ বলেন, আমার একটি মেস আছে। আগে যার হোল্ডিং ট্যাক্স ছিল ৫০০ টাকা। সেটিকে বাড়িয়ে ২২ হাজার টাকা করা হয়েছে। আইনজীবী এরশাদ আলী বলেন, তার বাড়ির হোল্ডিং ট্যাক্স আগে ছিল সাত হাজার টাকা। সেটিকে বাড়িয়ে ১ লাখ ১১ হাজার ৬১ টাকা করা হয়েছে। তারা বলেন, এভাবে দেড়শ থেকে আড়াইশ গুণ পর্যন্ত ট্যাক্স বাড়ানো কখনো যৌক্তিক হতে পারে না।

নাগরিক অধিকার সংরক্ষণ সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক এনামুল হকের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য দেন রাজশাহী ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ মামুদ হাসান, আইনজীবী এরশাদ আলী, সমাজসেবী ইফফাত আরা সরকার ইভা, ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর বজলুর রহমান, মহানগর মেস মালিক সমিতি সভাপতি অ্যাডভোকেট খোরশেদ আলম সিদ্দিকী, গণসংহতি আন্দোলন রাজশাহীর সমন্বয়কারী মুরাদ মোর্শেদ, ক্যাব রাজশাহী জেলা শাখার সভাপতি কাজী গিয়াস প্রমুখ।

 

 

"