দুই বাতিতে বিল ৬ হাজার এক বাতিতে ১৪শ!

প্রকাশ : ২৬ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
ADVERTISEMENT

অনিয়ম আর দূর্ণীতির মধ্য দিয়েই চলছে সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কার্যক্রম। চা পেয়াজু বিক্রেতা দুই বাতি জ¦ালিয়ে বিদ্যুৎ বিল প্রায় ৬ হাজারে পর এবার এক ক্ষেত মজুরের এক বাতি জ¦ালিয়ে বিদ্যুৎ বিল উঠেছে ১৪শ ৩৫ টাকা। পরবর্তীতে টাকা ফেরৎ দেওয়া হবে জানিয়ে বিল পরিশোধ করে নেওয়া হয়েছে। প্রতিদিনের সংবাদের কাছে এমন অভিযোগ করেন সাতক্ষীরার তালা উপজেলার শিবপুুর গ্রামের বারিক সরদার। তিনি বলেন, তিনমাস হলো আমি বাড়িতে বিদ্যুৎ নিয়েছি। গরীব মানুষ ছোট একটা এনার্জি বাল্ব জ¦লে বাড়িতে। ফ্যান, টিভি বা বিদ্যুৎ খরচ হওয়ার মত কোন কিছুই নেই। প্রথম আগস্ট মাসের বিল দিয়েছে সেপ্টেম্বর মাসে ১৫৬ টাকা, অক্টোবর মাসের বিল দেয় এক হাজার ৪শ ৩৫ টাকা। বিষয়টি নিয়ে পাটকেলঘাটায় অবস্থিত সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে গেলে পরে টাকা ফেরৎ দেওয়া হবে জানিয়ে আমার কাছ থেকে ১১৮০ টাকা নিয়েছে। নভেম্বর মাসে বিল দিয়েছে ৩১০ টাকা। পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের এমন দূর্ণীতি-অনিয়মের অভিযোগ শিবপুর এলাকার রুবেল মোল্লা, মাঝিয়াড়া গ্রামের কালাম মির্জাসহ শত শত মানুষের।

এ ব্যাপারে সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জিএস হাফিজুর রহমান বলেন, কারো অভিযোগ থাকলে মিটার বদলানোর জন্য আবেদন করা যেতে পারে। পরবর্তীতে মিটার পরীক্ষা করে বিল বেশী নিলে টাকা ফেরৎ দেওয়া হবে। তবে বিল বেশী দেওয়ার কথা স্বীকার করে তিনি বলেন, মাঝে মধ্যে ভুল হতে পারে। তবে সেটা সংশোধন করা যাবে না এমন তো নয়।

পাটকেলঘাটা এলাকার অমিত কুমার জানান, অদক্ষ আর অযোগ্য কর্মকর্তা কর্মচারীদের দিয়ে চলছে পাটকেলঘাটয় অবস্থিত সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কার্যক্রম। তাছাড়া অফিসের বাইরে রয়েছে দালাল। দুর্নীতি আর অনিয়মের আখড়ায় পরিণত হয়েছে এই জায়গা। ঘুষ লেনদেন তো আছেই। অফিসটিতে বর্তমানে মানুষকে সেবা দেওয়ার পরিবর্তে ভোগান্তির অভিযোগ বেশী।

 

 

"