সাব্বির-আলআমিনের শাস্তি অন্যদের ‘দৃষ্টান্ত’

প্রকাশ : ০১ ডিসেম্বর ২০১৬, ০০:০০

খেলা প্রতিবেদক
ADVERTISEMENT

সাব্বির রহমান ও আল আমিন হোসেনের শাস্তিকে ক্রিকেটারদের জন্য সতর্কবার্তা হিসেবে দেখছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থার পরিচালক ইসমাইল হায়দার মল্লিক আশা করছেন, বড় অঙ্কের এই আর্থিক জরিমানা থেকে শিক্ষা নেবেন অন্য ক্রিকেটাররা।

বিপিএলে শৃঙ্খলাভঙ্গের ঘটনায় বিপিএলের পারিশ্রমিকের ৫০ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছে বরিশাল বুলসের পেসার আল আমিনকে। রাজশাহী কিংসের টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান সাব্বিরকে করা হয়েছে ৩০ শতাংশ। এবারের বিপিএলে ‘এ’ প্লাস ক্যাটাগরির ক্রিকেটারদের মধ্যে সাব্বিরের পারিশ্রমিক ছিল ৪০ লাখ টাকা। আর ‘এ’ ক্যাটাগরিতে থাকা আল আমিনের পারিশ্রমিক ২৫ লাখ।

বুধবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব মল্লিক নিশ্চিত করেন, সাব্বির, আল আমিনের বিপক্ষে ম্যাচ ফিক্সিং বা স্পট ফিক্সিংয়ের কোনো অভিযোগ নেই। দুই ক্রিকেটার ঠিক কি করেছেন তাও জানাতে রাজি নন এই বিসিবি পরিচালক। ‘কি ধরনের শৃঙ্খলাজনিত কারণে এই শাস্তি হয়েছে তা আমরা পাবলিকলি বলতে চাচ্ছি না। এটা ম্যাচ ফিক্সিং ইস্যু কি না এমন সন্দেহ কারও হতে পারে। আমি নিশ্চিত করছি, এটা ফিক্সিং সংক্রান্ত কোনো ঘটনা নয়।’

মল্লিক জানান, বিসিবির দুর্নীতি বিরোধী ইউনিটের অধীনস্থ গোয়েন্দা ইউনিটের রিপোর্টে সাব্বির-আল আমিনের শৃঙ্খলাভঙ্গের ব্যাপারটি উঠে আসে। ‘এরপর আমরা তদন্ত করেছি এবং দুই খেলোয়াড়ের শুনানি হয়েছে। এরপরই ওদের শাস্তি দেওয়া হয়েছে। আমাদের বার্তাটা পরিষ্কার, শৃঙ্খলা ভাঙ্গলে কাউকে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না।’

এক প্রশ্নের জবাবে মল্লিক জানান, খুব গুরুতর কিছু করেননি জাতীয় দলের দুই ক্রিকেটার, তবে এটা উদ্বিগ্ন করার মতোই।

‘ওরা যে শৃঙ্খলা ভেঙেছে আমরা সেটা চিহ্নিত করতে এবং নিয়মানুযায়ী ওদের শাস্তি দিতে পেরেছি কি না সেটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এই ঘটনার মধ্য দিয়ে আমরা সবাইকে একটা বার্তা দিতে চেয়েছি...। এই টুর্নামেন্টে বিদেশি খেলোয়াড় আছে। জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা খেলছে, উদীয়মান ক্রিকেটাররাও আছে এখানে।’

‘আমরা চাই না এখানে কোনো ঘটনা দেখে তরুণ খেলোয়াড়রা ভুল পথে পা বাড়াক। এই জন্যই এই পদক্ষেপ নেওয়া, যেন তরুণ খেলোয়াড়দের মধ্যে এটা ছড়িয়ে না পড়ে। ওরা বিপথগামী না হয়। আশা করি, এখান থেকে অন্যরা শিক্ষা নেবে।’

"