তামিম-গেইলে বিধ্বস্ত রংপুর

প্রকাশ : ২৮ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

খেলা প্রতিবেদক
ADVERTISEMENT

রংপুর রাইডার্সের ইনিংস শেষে আক্ষেপ করেননি এমন ক্রিকেটপ্রেমী খুঁজে পাওয়াই মুশকিল ছিল। যে দলটাতে ক্রিস গেইল এবং তামিম ইকবালের মতো বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান আছেন তাদের কাছে ১২৫ কানো টার্গেট নাকী! মামুলি লক্ষ্যটা হেসে খেলেই জয় করল চিটাগং ভাইকিংস।

কাল মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে তামিম-গেইল তা-বে ভাইকিংস জিতল ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে। চার ওভার বাকি থাকতেই আসরের পঞ্চম জয় তুলে নিয়েছে তামিমের দল। দাপুটে এই জয়ে ইলিমিনেটর পর্বে যাওয়ার দৌড়ে আরেকধাপ এগিয়ে গেল তারা। পক্ষান্তরে টানা দুই ম্যাচ হেরে পয়েন্ট টেবিলের চার-এ নেমে গেছে রংপুর।

আফ্রিদি ফিরলেও এদিন জয়ে ফেরা হলো তাদের। দুপুর থেকেই মিরপুরের গ্যালারি হয়ে উঠেছিল দর্শকমুখর। গেইল ঝড় দেখতেই সমর্থকদের স্টেডিয়ামে আসা। ক্যারিবীয়ান ড্যাশিং ওপেনারও হতাশ করেননি ক্রিকেটপ্রেমীদের। প্রতিশ্রুতি মোতাবেক বিনোদন দিয়েছেন ভক্তকূলকে। দু’টি চার ও ৪টি ছক্কায় মাতিয়েছেন দর্শকদের। ৪০ রানে পাকিস্তানি যুগলবন্দিতে থামল গেইলঝড়। শহিদ আফ্রিদিকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে চিটাগং ওপেনার বল ভাসিয়ে দেন শূন্যে। ক্যাচটি দারুণভাবেই লুফে নেন আনোয়ার আলি। গেইল আউট হতেই গ্যালারিতে রীতিমত ভাটার টান পড়ে! দলীয় ৭০ রানে যখন উদ্বোধনী জুটি বিচ্ছিন্ন হলো ততক্ষণে জয়ের বাতিঘর দেখতে শুরু করে চিটাগং ভাইকিংস। সতীর্থ হারা তামিম পরে সঙ্গ পেলেন ২২ বলে ২২ রানের অজেয় ইনিংস খেলা এনামুল হক বিজয়ের। গেইলকে সাজঘরে পাঠালেও তামিমঝড় থামাতে পারেননি রংপুর। ৪৮ বলে ৬২ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলে বীরের বেশেই মাঠ ছাড়েন তামিম। ৯টি চার ও ১টি ছক্কার ইনিংস তার হাতে তুলে দিয়েছে ম্যাচ সেরার পুরস্কারও। কাল সন্ধ্যায় মুদ্রা নিক্ষেপের লড়াইয়ের সুবিধা নিয়ে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন রংপুর অধিনায়ক নাঈম ইসলাম। কিন্তু সুবিধা করতে পারেনি রংপুর। টপ অর্ডার কিংবা মিডলঅর্ডার ইনিংস লম্বা করতে পারেনি কেউ-ই। সৌম্য সরকারের ২৬ রানই হলো দলীয় সর্বোচ্চ। ২১ রান করতে গিয়ে মোহাম্মদ শেহজাদ খরচ করেছেন ২৮ বল! শুধু ওপেনারই নন, শেষ দিকে আনোয়ার আলি ছাড়া রংপুরের প্রায় সব ব্যাটসম্যানই শম্বুক গতিতে। যে কারণে লড়াই করার মতো কোনো স্কোর দাঁড় করাতে পারেনি রংপুর রাইডার্স। তবে শেষ দিকে ১৩ বলে ২০ রানের ছোটখটো ঝড় তুলেছেন আনোয়ার। রংপুরের পতন হওয়া ৬ উইকেটের দু’টি করে তুলে নিয়েছেন মোহাম্মদ নবি ও তাসকিন আহমেদ। শুভাশিষ রয় ও সাকলাইন সজীব ৮ ওভারে দিয়েছেন ৩৪ রান। দু’জন সমান রান দিয়েছে।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর

রংপুর রাইডার্স : ২০ ওভার, ১২৪/৬ (শাহজাদ ২১, সৌম্য ২৬, ডসন ১৪, আফ্রিদি ১৩, আনোয়ার ২০*; শুভাশীষ ১/১৭, নবি ২/৩১, তাসকিন ২/২৫)

চিটাগং ভাইকিংস: ১৬ ওভার, ১২৮/১ (তামিম ৬২*, গেইল ৪০, এনামুল ২২; আফ্রিদি ১/২৫, মুক্তার ০/৫, রুবেল ০/১৭)

ফল : চিটাগং ভাইকিংস

৯ উইকেটে জয়ী

ম্যাচ সেরা : তামিম ইকবাল (চিটাগং ভাইকিংস)

"