আফ্রিদির অভাব টের পেল রংপুর

সব ম্যাচই রাজশাহীর ফাইনাল!

প্রকাশ : ২৬ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

খেলা প্রতিবেদক
ADVERTISEMENT

৬ ম্যাচের ৫টিতে জিতে রীতিমত উড়ছিল রংপুর রাইডার্স। অবশেষে তাদের মাটিতে নামিয়ে আনল রাজশাহী কিংস। কাল মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে তৃতীয়পর্বের প্রথম ম্যাচে রংপুরকে ১২ রানে হারিয়েছে ডারেন স্যামির দল। শহিদ আফ্রিদির অভাবটা হাড়ে হাড়েই টের পেল শীর্ষে থাকা নাঈম ইসলামের দল। ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে কথাটা স্বীকার করলেন রাইডার্স কোচ জাভেদ ওমর বেলিম।

বিপিএলের চলমান আসরে রাইডার্সের বোলিং বিভাগ শুরু থেকেই দুর্দান্ত ছিল। বোলারদের পারফরম্যান্স অবলম্বনে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠেছে তারা। তবে কাল পূর্ণশক্তির দল নিয়ে মাঠে নামতে পারেনি রংপুর। প্রাণভোমরা আফ্রিদিকে ছাড়াই মোকাবেলা করতে হয়েছে রাজশাহীকে। পরিণামটা ভালো হয়নি। পাকিস্তানি অলরাউন্ডারের অভাবটা পুষিয়ে নিতে পারেনি দলটি।

বুধবার ব্যক্তিগত কারণে দেশে ফিরে যান আফ্রিদি। তবে শুক্রবার রাতেই ঢাকায় ফিরে আসছেন রংপুরের অন্যতম সেরা এ খেলোয়াড়। খেলবেন ২৭ তারিখের ম্যাচ। শুক্রবারের ম্যাচে আফ্রিদির পরিবর্তে খেলেন নাসির জামসেদ।

ম্যাচ শেষে রংপুর কোচ বেলিমও আফ্রিদির অনুপস্থিতিটাকে বড় করে দেখালেন। বলেছেন, ‘শেষ তিন ওভারে আমরা ম্যাচ থেকে ছিটকে গিয়েছি। ওই সময়টাতে বোলিং করেন শহিদ আফ্রিদি। ম্যাচে তার ৪টি ওভার খুব গুরুত্বপূর্ণ আমাদের জন্য।’

শেষ তিন ওভারে ৫৫ রান করেছে রাজশাহী কিংস। আফ্রিদি না থাকায় এই সময়টাতে আনোয়ার আলি ও রুবেল হোসেন বল করেছেন। দু’জনকেই বেধরক পিটিয়েছেন রাজশাহী কিংসের ড্যারেন সামি ও উমর আকমল। শেষ দিকে এ দু’জনের ঝড়ই চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহে পৌঁছে দেয় রাজশাহীকে।

তবে ১৬২ রান তাড়া করা অসম্ভব ছিল। কিন্তু ইনিংসের শুরু থেকেই ধীর গতিতে এগুতে থাকে রংপুর রাইডার্স। প্রথম ৭ ওভারে মাত্র ৩০ রান করেছে তারা। হারের কারণ হিসেবে শুরুর এই ধীরগতিটাকেও দায়ি করলেন রাইডার্স কোচ বেলিম। বলেছেন, ‘প্রথম ছয় ওভারে আমরা ভালোভাবে খেলতে পারিনি। পরিস্থিতি অনুযায়ী ব্যাটিং করতে পারিনি। শুরু থেকে রান তুলতে পারলে ম্যাচের ফল ভিন্ন হতে পারত।’

টুর্নামেন্টের চলমান আসরে সবচেয়ে দুর্ভাগা দলটা বোধহয় রাজশাহী-ই হবে। প্রথম পাঁচ ম্যাচের ৪টিতেই হেরেছে তারা। দু’টি ম্যাচে তো জিততে জিততে হেরেছে দলটি। অবশেষে দারুণভাবেই ঘুড়ে দাঁড়িয়েছে রাজশাহী। জয় তুলে নিয়েছে শেষ দুটি ম্যাচেই। তাতে ইলেমিনেটর পর্বে খেলার আশাটা বেঁচে আছে তাদের। তাই উড়তে থাকা রংপুরকে মাটিতে নামানোর পরও উচ্ছ্বাসে গা ভাসানোর সুযোগ নেই নবাগত দলটির। দলনেতা ডারেন সামির কাছে তো প্রতিটি ম্যাচই ফাইনাল, ‘আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। মনে রাখতে হবে এখন থেকে প্রতিটি ম্যাচই আমাদের জন্য ফাইনাল।’

অবশ্য রংপুর জয়ের রেশটা তাজা থাকতেই ফের মাঠে নামতে হচ্ছে রাজশাহীকে। আজ যে পয়েন্ট তালিকার দুই নাম্বারে থাকা খুলনা টাইটান্সের কাছে আরেকটা অগ্নিপরীক্ষা দিতে হচ্ছে তাদের! এই খুলনার বিপক্ষের ম্যাচ দিয়েই বিপিএলে অভিষেক হয়েছিল তাদের।

সেই হারের জ্বালা মেটানোর এরচেয়ে ভালো সুযোগ আর আসবেনা। জিতেও দল এখন যথেষ্ট চাঙ্গা। ফর্মে ফিরেছেন দলের সেরা তারকারাও। গতকাল দলের জয়ে দারুণ অবদান রাখেন অধিনায়ক ড্যারেন সামি। এই অবস্থায় প্রথম ম্যাচে হারের সেই প্রতিশোধ সামি-মিরাজরা আজ নিতে পারবেন তো?

 

 

"