মাইকেল ফেলপ্সের ২২

প্রকাশ : ১৩ আগস্ট ২০১৬, ০০:০০

খেলা ডেস্ক
ADVERTISEMENT

নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার অদম্য নেশায় মেতে উঠেছে সর্বকালের শ্রেষ্ঠ অলিম্পিয়ান মাইকেল ফেলপ্স। অবসর ভেঙে পুলে ফেরার পর থেকেই একের পর এক রূপকথা লিখে যাচ্ছেন মার্কিন সেনসেশন। বিদায়ের সঠিক মঞ্চ হিসেবে রিও অলিম্পিককে কেন তিনি বেছে নিয়েছেন সেটাও প্রতিনিয়ত প্রমাণ দিয়ে যাচ্ছেন ৩১ বছর বয়সী এই সাঁতারু। ফুটবলের তীর্থভূমির সুইমিং পুলের নীল জলে স্বর্ণপদক জয়ের হ্যাটট্রিক করেছেন আগেই। কাল ২০০ মিটার ব্যক্তিগত মিডলেতে সোনা জিতে গড়ে ফেলেছেন বিরল একটা কীর্তি। পরপর চার অলিম্পিকে এই ইভেন্টে শ্রেষ্ঠত্ব অক্ষুণœ রেখেছেন ফেলপ্স। অলিম্পিকের ইতিহাসেই এমন কীর্তি আছে মাত্র দুই জনের- ডিসকাস থ্রোতে আল ওয়েটার (১৯৫৬-৬৮) এবং লং জাম্পে কার্ল লুইসের (১৯৮৪-১৯৯৬), দুজনই অবশ্য ফেলপ্সের স্বদেশি।

তবে ব্যক্তিগত কোনো ইভেন্টে চারটি সোনা জেতা প্রথম সাঁতারু হলেন ফেলপ্স। সব মিলিয়ে এদিন অলিম্পিকে নিজের ২২তম সোনা জিতলেন ফেলপ্স এবং তার ঝুলিতে এখন ২৬টি পদক। যেখানে আছে ২টি রুপা ও ২টি ব্রোঞ্জপদক। সব পদক মেলালে ১৮টি পদক নিয়ে ফেলপ্সের পরে আছেন সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের জিমন্যাস্ট লারিসা লাতিনিনা। আর সোনার পদকের হিসেবে তো তার ধারেকাছেই কেউ নেই। ৯টি করে সোনা লাতিনিনা, ফিনল্যান্ডের দূরপাল্লার দৌড়বিদ পাভো নুরমি, যুক্তরাষ্ট্রের সাঁতারু মার্ক স্পিৎস ও স্প্রিন্টার কার্ল লুইসের।

অথচ ২০০ মিটার ব্যক্তিগত মিডলেতে প্রথম ল্যাপ শেষে মনে হচ্ছিল, ফেলপ্সের কাছ থেকে সোনা হাতছাড়া হয়ে যেতে পারে। শুরুর বাটারফ্লাই স্ট্রোকে এগিয়ে ছিলেন স্থানীয় দর্শকদের সমর্থনধন্য ব্রাজিলের সাঁতারু থিয়াগো পেরেরা। ব্যাকস্ট্রোক লেগেই ফিরে আসতে শুরু করেন ফেলপ্স। শেষ পর্যন্ত ১ মিনিট ৫৪.৬৬ সেকেন্ড সময় নিয়ে শেষ করেছেন। ১ মিনিট ৫৬.৬১ সেকেন্ড সময় নিয়ে দ্বিতীয় হয়েছেন জাপানের কসুকে হাগিনো। ১ মিনিট ৫৭.০৫ সেকেন্ড সময় ব্রোঞ্জ পেয়েছেন চীনের ওয়াং শুন। এই ইভেন্টে ফেলপ্সের দীর্ঘদিনের প্রতিদ্বন্দ্বী ও ছয়বারের পদকজয়ী রায়ান লোক্টি হয়েছেন পাঁচ নাম্বার এবং পেরেরা শেষ পর্যন্ত শেষ করেছেন সাতে।

৩১ বছর বয়সী ফেলপসের রিও অলিম্পিকে দুটি ব্যক্তিগত ও দুটি দলীয়। সবমিলিয়ে চারটি সোনা জেতা হলো তার। প্রথম সোনাটি ফেলপ্স পেয়েছিলেন গেমসের দ্বিতীয় দিনে সতীর্থদের সঙ্গে ৪*১০০ মিটার ফ্রি স্টাইল রিলেতে। চতুর্থ দিন ২০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ের সোনার পদকটা গলায় ঝুলিয়েই আবার সুইমিংপুলে নেমে জেতেন ৪*২০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলের সোনা। টানা চার অলিম্পিকে এই ইভেন্টে সোনাজয়ী যুক্তরাষ্ট্র দলের সদস্য হিসেবে থেকে আরেকটি রেকর্ড গড়েছিলেন ফেলপস ও তার সতীর্থ-বন্ধু রায়ান লোক্টি।

লন্ডনে গত অলিম্পিকেও চারটি সোনার পদক গলায় ঝুলিয়েছিলেন ফেলপ্স। এর আগে ২০০৪ সালে এথেন্সে ৬টি আর বেইজিংয়ে আটটি সোনা জেতেন সর্বকালের সেরা এই অলিম্পিয়ান। তবে রিও মহাকাব্য অবশ্য এখনই শেষ হয়ে যাচ্ছে না। ১০০ মিটার বাটারফ্লাই এখনো বাকি আছে। আজ সকালে সেটিতে সোনা জিতলে মুকুটে আরও একটি পালক যোগ হবে সর্বকালের অন্যতম সেরা এই অলিম্পিয়ানের।

"