৬ কর্মকর্তা বরখাস্ত

গাফিলতিতেই প্রধানমন্ত্রীর বিমানে ত্রুটি

হিউম্যান ফেইলর ফ্যাক্টরকে চিহ্নিত করার ভিত্তিতে দায়ী ব্যক্তির সংখ্যা পাঁচজনের বেশিও হতে পারে

প্রকাশ : ০১ ডিসেম্বর ২০১৬, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক
ADVERTISEMENT

বিমানের কর্মকর্তাদের গাফিলতিতেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিমানে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দিয়েছিল বলে তদন্তে প্রমাণ মিলেছে। বেসামরিক বিমান পরিবহনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন গতকাল বুধবার রাতে সচিবালয়ে বিমানের প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদন উপস্থাপন করে বলেন, এ ঘটনায় ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছয় কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হচ্ছে। বহিষ্কৃতরা হলেন-এস এম রোকনুজ্জামান, শামিউল হক, মিলন চন্দ্র বিশ্বাস, জাকির হোসাইন ও সিদ্দিকুর রহমান। এদের মধ্যে শেষের তিনজন বিমানের প্রকৌশল কর্মকর্তা। এর আগে বিমানের তদন্ত কমিটি প্রাথমিক রিপোর্টে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হয়। কমিটির প্রতিবেদনে বলা হয়, কর্তব্যে অবহেলার কারণে বিমানে ত্রুটি দেখা দেয়। এদিকে বিমানের তেল সঞ্চালন পাইপের ‘নাট ঢিলা’ হয়ে যাওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমানে ত্রুটি দেখা দিয়েছিল বলে জানান মন্ত্রী।

তিনি বলেন, বিমানের চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, তিনটি ফ্যাক্টর বিবেচনায় আনা হয়েছেÑযান্ত্রিক ত্রুটি কি না? পরিবেশগত ব্যাপার কি না (বেশি ঠান্ডা বা ঝড় কি না) এবং হিউম্যান ফ্যাক্টর ইনভলম্ব কি না? হিউম্যান ফেইলর ফ্যাক্টর প্রধান বলে তারা চিহ্নিত করেছেন। হিউম্যান ফেইলর ফ্যাক্টরকে চিহ্নিত করার ভিত্তিতে পাঁচজন অথবা এক-দুজন বেশিও হতে পারে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ইতোমধ্যে ম্যানেজমেন্টকে জানিয়েছে। আশা করি রাতে বা কাল (আজ) সকালের মধ্যে সে ব্যবস্থা তারা নেবেন।

রোববার হাঙ্গেরি সফরে রওনা হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের একটি বোয়িং ৭৭৭ বিমান যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে তুর্কমেনিস্তানের রাজধানী আশখাবাতে জরুরি অবতরণ করে। প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের সেখানে চার ঘণ্টা অনির্ধারিত যাত্রাবিরতি করতে হয়। ত্রুটি মেরামতের পর ওই উড়োজাহাজেই প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীরা বুদাপেস্টে পৌঁছান। এ ঘটনা তদন্তে বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রণালয় ও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস কর্তৃপক্ষ তিনটি তদন্ত কমিটি করে।

"