সীমান্ত খুলে দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে রিট

প্রকাশ : ২৯ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক ও কক্সবাজার প্রতিনিধি
ADVERTISEMENT

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশে বাধা দেওয়া থেকে বিরত থাকার নির্দেশনা চেয়ে রিট আবেদন করা হয়েছে। রিটে সাময়িক সময়ের জন্য সীমান্ত খুলে দেওয়ার নির্দেশনাও চাওয়া হয়েছে। এদিকে, কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার নাফ নদীর বিভিন্ন সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে আটটি নৌকায় করে অনুপ্রবেশের চেষ্টার সময় শতাধিক রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠিয়েছে বিজিবি।

হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিট আবেদনটি দায়ের করা হয়েছে বলে গতকাল সোমবার জানান সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আবু ইয়াহিয়া দুলাল। রিট আবেদনে নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশে বাধা দেওয়া কেন অমানবিক ও বেআইনি ঘোষণা করা হবে নাÑ এ বিষয়ে রুল চাওয়া হয়েছে। রুল শুনানি না হওয়া পর্যন্ত অন্তর্র্বর্তীকালীন নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। আইনজীবী আবু ইয়াহিয়া দুলাল বলেন, আজ রিট আবেদনটি শুনানির জন্য হাইকোর্টে উপস্থাপন করা হবে। রিট আবেদনে স্বরাষ্ট্রসচিব, আইজিপি, বিজিবির মহাপরিচালক ও কোস্টগার্ডের ডিজিকে বিবাদী করা হয়েছে।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে দেশটির সেনা-পুলিশ সহিংস অভিযান চালাচ্ছে। এই অভিযানে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের হতাহতের খবর আসছে। অভিযান শুরু হওয়ার পর থেকে বাংলাদেশ সীমান্তে অনুপ্রবেশের জন্য রোহিঙ্গাদের উপস্থিতি বেড়েছে। অনুপ্রবেশের সময় বিজিবি রোহিঙ্গাদের আটক করে ফেরত পাঠাচ্ছে। তা সত্ত্বেও অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটছে।

রোহিঙ্গাদের ৮ নৌকা ফেরত : এদিকে, গতকাল সোমবার ভোরে উপজেলার নাফ নদীসংলগ্ন সীমান্ত থেকে তাদের ফেরত পাঠানো হয় বলে বিজিবির টেকনাফ ২ ব্যাটালিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর আবু রাসেল সিদ্দিকী জানান। গত ৯ অক্টোবর মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর তিনটি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলার ঘটনার পর দেশটির সেনাবাহিনীর অভিযানের মুখে রোহিঙ্গারা পালিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বিজিবির কক্সবাজার ৩৪ ব্যাটালিয়ন থেকে বলা হচ্ছে, গত ১ নভেম্বর থেকে ২৭ নভেম্বর পর্যন্ত মোট ৪১৬ অনুপ্রবেশ চেষ্টাকারী রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠানো হয়েছে। মেজর আবু রাসেল গণমাধ্যমকে বলেন, ভোরের দিকে নাফ নদীর ছয়টি পয়েন্ট দিয়ে আটটি নৌকায় করে শতাধিক রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালায়। এ সময় বিজিবির টহল দলের সদস্যরা এসব রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠায়। প্রতি নৌকায় অন্তত ১২ থেকে ১৫ জন করে রোহিঙ্গা ছিল বলে জানান তিনি।

এর আগে রোববার টেকনাফের নাফ নদীর বিভিন্ন সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে অনুপ্রবেশের চেষ্টার সময় রোহিঙ্গাদের বহনকারী ছয়টি নৌকায় থাকা অন্তত ৬৫ জন এবং উখিয়া সীমান্ত দিয়ে পাঁচজনকে ফেরত পাঠায় বিজিবি। শনিবার উখিয়া, ঘুমধুম এবং টেকনাফের নাফ নদীর বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশ চেষ্টাকালে আট রোহিঙ্গা ও চারটি নৌকা ফেরত পাঠানো হয়েছিল। এ নিয়ে গত এক সপ্তাহে অনুপ্রবেশ চেষ্টাকালে রোহিঙ্গা বহনকারী অর্ধশতাধিক নৌকা ফেরত পাঠানো হয়েছে বলে বিজিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

"