বিনা পারিশ্রমিকে দেশের জন্য গাইলেন ন্যান্সি

প্রকাশ : ২৯ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

হামিদ রনি
ADVERTISEMENT

বিজয় দিবসে দুটি দেশের গান নিয়ে শ্রোতাদের সামনে হাজির হচ্ছেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ন্যান্সি। ‘সবকিছুর ঊর্ধ্বে দেশ’ এবং ‘আমার বাংলাদেশ’ দুটি গানই বিনা পারিশ্রমিকে করছেন এই শিল্পী। ‘সবকিছুর ঊর্ধ্বে দেশ’ শিরোনামের গানটি লিখেছেন স্নেহাশীষ ঘোষ, সুর করেছেন মিলন ও সঙ্গীত পরিচালনা করবেন এমএমপি রনি। ২ ডিসেম্বর গানটির রেকর্ডিং হবে। অন্যদিকে লুৎফর হাসানের কথা ও সুরে গানটির শিরোনাম ‘আমার বাংলাদেশ’। এর সংগীতায়োজন করেছেন অমিত কর। ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে প্রকাশ পাবে গানটি।

‘আমার বাংলাদেশ’ গানটির ব্যাপারে লুৎফর হাসান বলেন, ন্যান্সির কাছে আমি ঋণী। ঋণী আসলে আমি একা নই। যারা বাংলা গান ভালোবাসে তাদের সবাই। নিঃসন্দেহে এ প্রজন্মের অন্যতম সেরা শিল্পীদের একজন তিনি। ‘আমার বাংলাদেশ’ শিরোনামের দেশাত্মবোধক গানটি গাইতে এসে তিনি কোনো প্রকার অর্থ দাবি করেননি এবং নিতেও আগ্রহ দেখাননি। পাশাপাশি তিনি ঘোষণা দিয়েছিলেন দেশাত্মবোধক গানের জন্য তিনি কাউকে ভোগাবেন না। তিনি স্বতঃস্ফূর্ত হয়েই গাইবেন। ন্যান্সি কথা রেখেছেন। যেদিন তিনি গানে কণ্ঠ দিলেন, তার পরের দিনই তার সন্তান প্রসবের দিনক্ষণ ঠিকঠাক ছিল। নিজের দায়িত্ববোধের জায়গা থেকে এ রকম স্পর্শকাতর দিনে তিনি কণ্ঠ দিয়ে গেলেন। দাঁড়াতেই পারছিলেন না মাইক্রোফোনের সামনে। অথচ কত মনোযোগের সঙ্গে গানটি গেয়ে গেলেন।

গান দুটির ব্যাপারে ন্যান্সি বলেন, বিজয় দিবস উদযাপন করতে ও মহান মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান জানাতেই এই গান করা। সে অনুযায়ী কাজ হচ্ছে। আশা করি ভালো কিছু হবে।

এর আগে মায়ের প্রতি ভালোবাসা থেকে স্নেহাশীষ ঘোষের লেখা ও মিলনের সুরে মাকে নিয়ে বিনা পারিশ্রমিকে একটি গান করেন ন্যান্সি। অল্প সময়ে মা শিরোনামের গানটি দারুণ জনপ্রিয়তা লাভ করে। তখন থেকে তিনি জানিয়ে দিয়েছিলেন, মা ও দেশমাতৃকাকে নিয়ে কোনো গান হলে তিনি পারিশ্রমিক নেবেন না।

এরপর থেকে এ সম্পর্কিত গান নিয়মিতই তার কাছে আসতে থাকে। ন্যান্সি তার প্রতিজ্ঞায় অটল। তবে সেখানে শর্ত দিয়ে দেন। গানের জন্য টাকা দিতে হবে না। তবে গানটি বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার হলে সেখান থেকে তার প্রাপ্য অংশ দিতে হবে, যা তিনি কোনো জনহিতকর কাজে ব্যয় করবেন।

"