সালমার বিবাহ-বিচ্ছেদ!

প্রকাশ : ২৭ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

বিনোদন প্রতিবেদক
ADVERTISEMENT

ভেঙে গেল কণ্ঠশিল্পী সালমার ও দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য শিবলী সাদিকের পাঁচ বছরের সংসার। দাম্পত্য কলহের জের ধরে গত ২০ নভেম্বর রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকার একটি রেস্তোরাঁয় দুই পরিবারের উপস্থিতিতে তালাকের কার্য সম্পন্ন হয়েছে। একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, সালমাকে মোহরানার ২০ লাখ ১ টাকা বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সালমা বিচ্ছেদের কথা স্বীকার করে বলেন, ‘এতদিন ধরে চেষ্টা করেছিলাম সংসারটা যেন না ভাঙে। শেষ পর্যন্ত গান-বাজনাও ছেড়েছিলাম, শুধু তার সংসার করব বলে। কিন্তু আমি আসলে জানতাম না যে, সে এমপি হয়ে যাওয়ার পর আমার জীবনটা এরকম হয়ে যাবে। সে এভাবে পরিবর্তন হয়ে যাবে, আমাকে ভালোবাসে না, গানকে ভালোবাসে না, আমার পরিবারকে সম্মান করে না। না আমার পড়াশোনায় আপত্তি তোলে। আমার প্রতি, আমাদের প্রতি যে একটা দায়িত্ববোধ থাকার দরকার, সেটা ছিল না। তারচেয়ে বড় কথা ড্রিংকস করা, মেয়ে নিয়ে ফুর্তি করা, আসলে সহ্য করার মতো নয়। আমি প্রতিবাদ করেছিলাম বলে আমার গায়েও হাত তুলেছিল, অনেক অত্যাচার করেছে। আমি বাধ্য হয়েছি সেখান থেকে বেরিয়ে আসতে।

এ বিষয়ে শিবলী সাদিক বলেন, ‘আমি আসলে বিবাহ বিচ্ছেদ চাইনি। সালমার কারণে বিচ্ছেদের পথে হাঁটলাম আমরা। সালমা চায় গান করতে। আমিও সেটা চেয়েছি কিন্তু সালমা নিজের বাচ্চার যতেœর থেকেও গানকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। এটা আমি ইতিবাচক ভাবে মেনে নিতে পারছি না। আরো কিছু বিষয় আছে যা আমি শেয়ার করতে চাই না।’

প্রসঙ্গত, ২০০৯ সালে দিনাজপুরের স্বপ্নপুরীতে একটি অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করতে গেলে শিবলীর সঙ্গে সালমার পরিচয় হয়। সেই সূত্র ধরেই দুই পরিবারের মধ্যস্থতায় সম্পূর্ণ ঘরোয়াভাবে ২০১১ সালের ২৬ জানুয়ারি দিনাজপুরের পিকনিক স্পট স্বপ্নপুরীর স্বত্বাধিকারী শিবলী সাদিকের সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন কণ্ঠশিল্পী সালমা। এরপর ২০১৪ সালের ১ জানুয়ারি সালমার কোলজুড়ে আসে কন্যাসন্তান ¯েœহা। কন্যা এখন শিবলী সাদিকের কাছে আছে।

 

 

"