অর্ধশতাধিক প্রতিষ্ঠানের ৪০০ কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি

প্রকাশ : ২৯ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

চট্টগ্রাম ব্যুরো
ADVERTISEMENT

রফতানির শর্তে শুল্কমুক্ত সুবিধায় কাঁচামাল আমদানি করতে পারেন কারখানার মালিকরা। তবে অভিযোগ রয়েছে, শুল্কমুক্ত সুবিধার অপব্যবহার করে এসব কাঁচামাল খোলা বাজারে বিক্রি করে দেয়ায় সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্ব হারাচ্ছে। একই সঙ্গে বাজারে অসম প্রতিযোগিতার মুখে পড়ছেন বাণিজ্যিক আমদানিকারকরা। গত দুই বছরে অর্ধশতাধিক অ্যাকসেসরিজ প্রতিষ্ঠান অন্তত ৪০০ কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি দিয়েছে এমন প্রমাণ পেয়েছেন চট্টগ্রাম বন্ড কমিশনারেট, শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর। এর মধ্যে গোল্ডেন সান ও লিবার্টি গ্রুপ প্রতিষ্ঠান মিলে ফাঁকি দিয়েছে ৮৮ কোটি টাকার রাজস্ব।

চট্টগ্রাম বন্ড কমিশনারেট, শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত দুই বছরে শুল্কমুক্ত সুবিধার অপব্যবহার করে ৬৩টি প্রতিষ্ঠান অন্তত ৩৯৪ কোটি টাকার রাজস্ব ফাঁকি দিয়েছে। এর মধ্যে চট্টগ্রাম বন্ড কমিশনারেটের অর্ধশতাধিক প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে বন্ডের পণ্য খোলা বাজারে বিক্রির মাধ্যমে সরকারকে ২৩২ কোটি ৩ লাখ টাকার রাজস্ব ফাঁকির প্রমাণ পেয়েছেন শুল্ক কর্মকর্তারা। এসব ঘটনায় ১৫৯টি মামলা হয়েছে।

একই অভিযোগে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে চট্টগ্রামের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে অন্তত ১৮১ কোটি টাকার রাজস্ব ফাঁকির প্রমাণ পেয়েছেন শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর, চট্টগ্রাম কার্যালয়ের কর্মকর্তারা। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি (৬৬ কোটি ১৪ লাখ টাকা) রাজস্ব ফাঁকি দিয়েছে চট্টগ্রামের বদ্দারহাট এলাকার মেসার্স লিবার্টি অ্যাকসেসরিজ লিমিটেড ও লিবার্টি গ্রুপের আরো ছয়টি প্রতিষ্ঠান। বন্ড কমিশনারেটের ২৪টিসহ প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে অন্তত ৩০টি মামলা হয়েছে। চট্টগ্রামের খোয়াজনগর এলাকার মেসার্স গোল্ডেন সান লিমিটেডের কারখানায় অভিযান চালিয়ে গত দুই বছরে ২১ কোটি ৫৫ লাখ টাকার রাজস্ব ফাঁকির দায়ে নয়টি মামলা করেছে বন্ড কমিশনারেট, শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর।

"