সম্পদ বেড়েছে দেশের প্রাপ্তবয়স্কদের

প্রকাশ : ২৮ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

বাণিজ্য ডেস্ক
ADVERTISEMENT

এক বছরের ব্যবধানে বাংলাদেশি প্রাপ্তবয়স্কদের হাতে থাকা সম্পদের পরিমাণ বেড়েছে ১ লাখ ৬৩ হাজার ৮০০ কোটি টাকা। মাথাপিছু সম্পদের পরিমাণ ১০৬৯ ডলার বা ৮৩ হাজার টাকার বেশি। বিভিন্ন দেশের জনসংখ্যা ও তাদের সম্পদের তথ্য নিয়ে এই প্রতিবেদন প্রকাশ করছে সুইজারল্যান্ডভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ক্রেডিট সুইস রিসার্চ ইন্সটিটিউট।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, বাংলাদেশের মাথাপিছু জিডিপির পরিমাণ হলো ১৪০৪ মার্কিন ডলার। সবমিলিয়ে ২০১৬ সালে বাংলাদেশিদের সম্পদের আকার ২৫৮ বিলিয়ন ডলার, যা বিশ্ব সম্পদের মাত্র শূন্য দশমিক ১ ভাগ। ২০০০ সালের শেষ দিকে বাংলাদেশের প্রাপ্তবয়স্কদের হাতে থাকা সম্পদের পরিমাণ ছিল মাত্র ৭৮ বিলিয়ন ডলার। ২০১৫ সালে বাংলাদেশিদের সম্পদের পরিমাণ ছিল ২৩৭ বিলিয়ন ডলার। অর্থাৎ এক বছরের ব্যবধানে বাংলাদেশিদের প্রাপ্তবয়স্কদের হাতে সম্পদের পরিমাণ বেড়েছে ২১ বিলিয়ন ডলার। অর্থাৎ ১ লাখ ৬৩ হাজার ৮০০ কোটি টাকার সম্পদ বেড়েছে এক বছরের ব্যবধানে। চলতি বছরের মধ্য সময়ের তথ্য নিয়ে এই প্রতিবেদনটি তৈরি করা হয়েছে। এক বছরের ব্যবধানে ডলারের বিপরীতে টাকার মান বেড়েছে শূন্য দশমিক ৮ ভাগ। এর পরেও বাংলাদেশিদের এ সম্পদ বেড়েছে।

প্রতিবেদনে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, মাত্র শূন্য দশমিক ৭ ভাগ মানুষের হাতে রয়েছে বিশ্বের অর্ধেক সম্পদের মালিকানা। এই বৈষম্য সবচেয়ে বেশি রাশিয়ায়। মাত্র এক শতাংশ ধনীর হাতে রয়েছে রাশিয়ার ৭৪ দশমিক ৫ ভাগ সম্পদ। এর পরেই রয়েছে ভারত। রিপোর্ট অনুযায়ী ভারতের এক শতাংশ মানুষের হাতে রয়েছে দেশটির ৬০ ভাগ সম্পদ। এশিয়ার দেশ থাইল্যান্ডের ৫৮ দশমিক ৪ ভাগ সম্পদ রয়েছে দেশটির মাত্র ১ ভাগ জনগোষ্ঠীর হাতে।

ব্রাজিলের ৪৭ দশমিক ৯ ভাগ এবং চীনের ৪৩ দশমিক ৮ ভাগ সম্পদ রয়েছে দেশগুলোর এক শতাংশ মানুষের হাতে। গত এক বছরের ব্যবধানে বিশ্বে সবচেয়ে বেশি সম্পদ বেড়েছে জাপানের। এরপর রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, ফ্রান্স, কানাডা, নিউজিল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া ও ব্রাজিল। সম্পদ কমে যাওয়ার শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাজ্য, চীন, মেক্সিকো, রাশিয়া, আর্জেন্টিনা, সুইজারল্যান্ড ও ইটালি।

"