বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়াতে আগ্রহী যুক্তরাজ্য

প্রকাশ : ২৬ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

বাণিজ্য ডেস্ক
ADVERTISEMENT

ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) বাইরের দেশের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়ানোর ক্ষেত্রে বাংলাদেশকেও সম্ভাবনাময় গন্তব্য হিসেবে বিবেচনা করছে যুক্তরাজ্য। এ কারণে বাংলাদেশে ব্যবসার পরিবেশ উন্নত করতে দেশটি বাংলাদেশ সরকারকে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে।

গত মঙ্গলবার ব্রিটিশ পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ হাউস অব কমন্সের নিয়মিত অধিবেশনে এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র ও কমনওয়েলথ-বিষয়ক দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী অলোক শর্মা।

মঙ্গলবার হাউস অব কমন্সে পররাষ্ট্র ও কমনওয়েলথ-বিষয়ক নিয়মিত প্রশ্নোত্তর পর্বে যুক্তরাজ্যের ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির এমপি ম্যাগি থ্রোপ প্রতিমন্ত্রীর কাছে জানতে চান, বাংলাদেশের সঙ্গে কূটনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক নিয়ে যুক্তরাজ্য সরকারের সাম্প্রতিক মূল্যায়ন কী? গত রোববার বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উল্লেখ করে ম্যাগি আরও বলেন, ইইউর বাইরের দেশগুলোর সঙ্গে যুক্তরাজ্য বাণিজ্য সম্পর্ক বাড়ানোর চেষ্টা চালাচ্ছে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সঙ্গে কূটনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক শক্তিশালী করা উচিত বলে মন্ত্রী মনে করেন কি না?

জবাবে প্রতিমন্ত্রী অলোক শর্মা বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের ঐতিহাসিক এবং সাংস্কৃতিক ঘনিষ্ঠতার কথা উল্লেখ করে বলেন, দুই দেশের মধ্যে শক্তিশালী কূটনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক বিদ্যমান। যুক্তরাজ্য বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ ক্রম সঞ্চিত বিনিয়োগকারী (কিউমিউলেটিভ ইনভেস্টর) দেশ এবং সবচেয়ে বড় দ্বিপক্ষীয় অনুদান দাতা। তিনি আরও বলেন, প্রায় পাঁচ লাখ বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মানুষ যুক্তরাজ্যে বসবাস করছে এবং অর্থনীতিতে অসামান্য অবদান রেখে চলেছে। বাংলাদেশের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য ও বিনিয়োগ উৎসাহ দিতে যুক্তরাজ্য সরকারের আরও বেশি এগিয়ে আসা উচিত বলে তিনি মন্তব্য করেন।

অপর এক প্রশ্নে স্কটিশ ন্যাশনালিস্ট পার্টির (এসএনপি) এমপি লিসা ক্যামেরন বলেন, ২০১৩ সালে রানা প্লাজা ধসের ভয়াবহ ঘটনা সত্ত্বেও সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে ভবনের কাঠামোগত ত্রুটির সুরাহা অসম্পূর্ণ রয়েছে বলে উঠে এসেছে। ভবনগুলোতে অগ্নি দুর্ঘটনায় দ্রুত বের হওয়ার জরুরি পথ (ফায়ার এক্সিট) এবং অগ্নি সংকেত (ফায়ার অ্যালার্ম) নেই। বৈশ্বিক প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য কাজ করছে এমন শ্রমিকদের কর্মপরিবেশের নিরাপত্তা নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে কি না, সে বিষয়ে জানতে চান এই এমপি।

 

 

"