ফের উত্তর কোরিয়ায় জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশ : ০২ ডিসেম্বর ২০১৬, ০০:০০

বিদেশ ডেস্ক
ADVERTISEMENT

উত্তর কোরিয়ার ওপর নতুন করে অবরোধ আরোপ করেছে জাতিসংঘ । দেশটির রপ্তানি আয় কমাতে বুধবার নিরাপত্তা পরিষদ এ অবরোধ আরোপের ঘোষণা দিয়েছে। জানুয়ারি মাসে পরমাণু বিস্ফোরণের পরীক্ষার পর থেকেই আন্তর্জাতিক সমালোচনার মুখে রয়েছে উত্তর কোরিয়া। এরপরও সর্বশেষ গত সেপ্টেম্বরে দেশটি তাদের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় পারমাণবিক পরীক্ষা চালিয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ পিয়ংইয়ংয়ের ওপর অবরোধের আওতা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বুধবার নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ সদস্যের সম্মতিতে উত্তর কোরিয়ার ওপর অবরোধের আওতা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এতে দেশটির সবচেয়ে বড় রপ্তানি খাত কয়লার বার্ষিক বিক্রি ৬০ শতাংশ কমানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। একইসঙ্গে দেশটির কপার, নিকেল, তামা ও জিঙ্ক রপ্তানিতেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

পারমাণবিক বোমা ও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ইস্যুতে ২০০৬ সাল থেকে উত্তর কোরিয়ার ওপর অবরোধ আরোপ করেছে জাতিসংঘ। এরপরও গত ৯ সেপ্টেম্বর সর্বশেষ দেশটি পারমাণবিক বোমার পরীক্ষা চালিয়েছে। এরপরই নিষেধাজ্ঞার ব্যাপ্তি বাড়াতে পিয়ংইয়ংয়ের ঘনিষ্ঠ মিত্র চীনের সঙ্গে বৈঠকে বসে যুক্তরাষ্ট্র। প্রায় দুই মাস আলোচনার পর নতুন করে অবরোধ আরোপের বিষয়ে সম্মত হয়েছে চীন।

ভোট শেষে নিরাপত্তা পরিষদে জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন বলেছেন, ‘অবরোধ তখনই কার্যকর হবে যখন এটি প্রয়োগ করা হবে। এই নিষেধাজ্ঞা পুরোপুরি কার্যকর করতে জাতিসংঘের প্রতিটি সদস্যকে বাধ্যতামূলকভাবে সবধরণের প্রচেষ্টা নিশ্চিত করতে হবে।’

সম্প্রতি উত্তর কোরিয়া সতর্ক করে জানায়, কোরীয় উপদ্বীপকে যুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া। সামরিক মহড়া নিয়ে উত্তেজনার পরিপ্রেক্ষিতে ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে উত্তর কোরিয়া জবাব দিয়েছে বলে ধারণা করছে দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনী। সাবমেরিন থেকে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা বিশেষ গুরুত্ব বহন করে। কারণ সাবমেরিনকে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে যাওয়া সম্ভব এবং ক্ষেপণাস্ত্র চালানোর পূর্বপ্রস্তুতি আগে থেকে বোঝার উপায় নেই।

ক্ষেপণাস্ত্র ও পারমাণবিক অস্ত্র পরীক্ষার পরিপ্রেক্ষিতে উত্তর কোরিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে জাতিসংঘ।

তবে নিষেধাজ্ঞার মধ্যেই সাম্প্রতিক মাসগুলোতে একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে উত্তর কোরিয়া। ধারণা করা হয়, উত্তর কোরিয়া তাদের পঞ্চম পারমাণবিক অস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর শেষ পর্যায়ে আছে। এ বছর যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়া একটি বিতর্কিত ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা স্থাপনে একমত হয়। ওই সময় হুমকি দেয় এবং ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালায় উত্তর কোরিয়া।

দেশটির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, তারা ক্ষেপণাস্ত্রে পারমাণবিক বোমা সংযোজনের সক্ষমতা অর্জন করেছে। তবে দেশটি এ সক্ষমতা অর্জন করতে পারেনি বলে মত বিশ্লেষকদের।

"