ভারত-পাকিস্তানের সমস্যা সমাধানে আগ্রহী ট্রাম্প

প্রকাশ : ০২ ডিসেম্বর ২০১৬, ০০:০০

বিদেশ ডেস্ক
ADVERTISEMENT

পাকিস্তান চাইলে বকেয়া সমস্যার সমাধানে ভূমিকা গ্রহণ করতে আগ্রহী আমেরিকার নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট- ডোনাল্ড ট্রাম্প। পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে এ কথা বলেছেন ট্রাম্প। শরিফ আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ের জন্য ট্রাম্পকে অভিনন্দন জানাতে টেলিফোন করেছিলেন। পাক প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে জারি করা বিবৃতিতে ট্রাম্পের সঙ্গে শরিফের কথপোকথন সম্পর্কে জানানো হয়েছে।

ট্রাম্প শরিফকে বলেছেন, ‘আপনি চাইলে আমি বকেয়া সমস্যাগুলির সমাধানে ভূমিকা নিতে রাজি। এটা আমার কাছে সম্মানের বিষয় হবে এবং ব্যক্তিগতভাবে আমি তা করব। যে কোনও সময়, এমনকি আগামী ২০ জানুয়ারী দায়িত্বভার গ্রহণের আগেও আমাকে স্বচ্ছন্দে ফোন করতে পারেন’।

টেলিফোনে কথা বলার সময় ট্রাম্প শরিফের প্রশংসাও করেছেন এবং খুব শীঘ্রই তাঁর সঙ্গে বৈঠকের আগ্রহের কথাও জানিয়েছেন বলে রেডিও পাকিস্তান সূত্রে জানা গিয়েছে। শরিফ ট্রাম্পকে পাকিস্তান সফরে আসার আমন্ত্রণও জানিয়েছেন। উত্তরে ট্রাম্প বলেছেন, পাকিস্তান সফরে এসে সেদেশের মানুষের সঙ্গে দেখা করতে পারলে তাঁর ভালো লাগবে।

এর আগে ট্রাম্প জানিয়েছিলেন, ভোটে জিতলে তিনি ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালন করতে চান। কিন্তু একইসঙ্গে বলেছিলেন, দুই দেশ চাইলে তবেই তিনি তা করবেন।

নওয়াজের প্রশংসায় ট্রাম্প : পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফকে ‘দুর্দান্ত মানুষ’ বলে আখ্যা দিয়েছেন নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বুধবার নওয়াজ শরিফ নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্টকে টেলিফোন করে অভিনন্দন জানান। প্রতিক্রিয়ায় নওয়াজকে এমন ইতিবাচকভাবে হাজির করেন ট্রাম্প। সে সময় নওয়াজের প্রশংসাও করেছেন তিনি।

পাকিস্তান ও ভারতের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমসহ ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ায় ট্রাম্পকে ফোন করেছিলেন নওয়াজ। আর প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সূত্রে রয়টার্স জানায়, নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিজয় উপলক্ষে তাকে টেলিফোনে অভিনন্দন জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। রয়টার্সের খবরে পাকিস্তান-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ককে বহুদিনের হৃদ্যতাপূর্ণ সম্পর্ক বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে ফাটল ধরার কথাও জানিয়েছে রয়টার্স।

পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডনের খবরে বলা হয়, টেলিফোনে কথোপকথনের সময় নওয়াজ মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের বিজয়ী ট্রাম্পকে অভিনন্দন জানান। আর প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের দেওয়া বিবৃতির বরাতে রয়টাস জানায়, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নওয়াজ শরীফকে বলেছেন ‘তোমার বেশ সুনাম রয়েছে। তুমি আসলে একজন দুর্দান্ত মানুষ। তুমি এমন কিছু ইতিবাচক ভূমিকা রাখছ, যা সবক্ষেত্রেই দৃশ্যমান।’

ট্রাম্পের কার্যালয় সূত্রের বরাতে রয়টার্স জানায়, টেলিফোন কলের ব্যাপারটি নিশ্চিত করা হয়েছে ট্রাম্প শিবিরের পক্ষ থেকে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ব্যাপারে কার্যকর আলোচনা হয়েছে। অবশ্য দুই পক্ষের কেউই জানায়নি, সুনির্দিষ্ট কোন বিষয়ে সহায়তা দিতে চেয়েছেন ট্রাম্প।

নওয়াজের উদ্দেশে ট্রাম্প আরও বলেন, ‘সমস্যা শনাক্ত করে তা সমাধানের জন্য তুমি আমাকে ভূমিকা নিতে বললে সেটা করার জন্য আমি সবসময় তৈরী আছি। এতে আমি সম্মানিত বোধ করব। ব্যক্তিগত প্রচেষ্টায় সেই কাজ করার চেষ্টা করব।’ এর আগে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার আগে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে কাশ্মির ইস্যু সমাধানে মধ্যস্থতা করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন ট্রাম্প।

"