যুক্তরাষ্ট্র থেকে ৫ হাজার কোটি টাকার অস্ত্র কিনছে ভারত

প্রকাশ : ০২ ডিসেম্বর ২০১৬, ০০:০০

বিদেশ ডেস্ক
ADVERTISEMENT

চীন সীমান্তে মোতায়েনের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে ৫ হাজার কোটি রুপি মূল্যের অত্যাধুনিক অস্ত্র কেনার চুক্তি স্বাক্ষর করেছে ভারত। বুধবার এ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। চুক্তি অনুসারে, ভারতকে ১৪৫টি এম ট্রিপল সেভেন আল্ট্রা-লাইট হোউইটজার আর্টিলারি গান দেবে যুক্তরাষ্ট্র। ১৯৮০-র দশকে বোফর্স কেলেঙ্কারির পর প্রথমবারের মতো ভারত আর্টিলারি গান কিনতে যাচ্ছে। ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এ খবর জানিয়েছে।

দিল্লিতে শুরু হওয়া দু’দিনব্যাপী ১৫তম ভারত-মার্কিন কোঅপারেশন গ্রুপ (এমসিজি)-এর বৈঠকে চুক্তিটি স্বাক্ষরিত হয়। সূত্রের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়েছে, ভারত আজ একটি সম্মতিপত্রে স্বাক্ষর করেছে যাতে করে ভারত-যুক্তরাষ্ট্র এ অস্ত্র কেনার চুক্তি চূড়ান্ত করতে পারে। সম্প্রতি ভারতের নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রিসভা কমিটি ১৪৫টি মার্কিন আল্ট্রা-লাইট হোউইটজার কেনার জন্য ৫ হাজার কোটি রুপি ব্যয়ের অনুমোদন দিয়েছে।

ভারত-মার্কিন এমসিজি নিরাপত্তা বিষয়ক সহযোগিতার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন ইউএস মেরিন কর্পস ফোর্সেস এর কমান্ডার লেফট্যানেন্ট জেনারেল ডেভিড এইচ বারজার, লেফট্যানেন্ট জেনারেল সতিশ দুয়া। বৈঠকে ভারতের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন এয়ার মার্শাল এএস ভোঁসলে।

সূত্র জানায়, এসব অস্ত্র কেনার জন্য ভারত যুক্তরাষ্ট্র সরকারের কাছে লিখিত ইচ্ছা প্রকাশ করে। এসব অস্ত্র চীন সীমান্তের অরুণাচল প্রদেশ ও লাদাখে মোতায়েন করা হবে। ভারতের আগ্রহের প্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্র সম্মতিপত্র (লেটার অব অ্যাকসেপ্টেন্স) স্বাক্ষর করেছে। আগামী জুন মাসে চুক্তির শর্ত নিয়ে আলোচনা ও অনুমোদন দেওয়া হবে।

ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে সুড়ঙ্গের সন্ধান : জম্মুর চামলিয়ালে ভারত ও পাকিস্তানের আন্তর্জাতিক সীমান্তে একটি সুড়ঙ্গ পেয়েছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। বিএসএফের ধারণা, এই সুড়ঙ্গ ব্যবহার করে পাকিস্তানি সন্ত্রাসীরা নাগরোটা সেনাঘাঁটিতে প্রবেশ করে হামলা চালায়। তবে সুড়ঙ্গটি পাকিস্তানের ঠিক কোথা থেকে শুরু হয়েছে, তা বলতে পারেনি বিএসএফ।

ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মহাপরিচালক কে কে শর্মা বুধবার গণমাধ্যমকে সুড়ঙ্গটির বিষয়ে অবহিত করেন। মঙ্গলবার সীমান্তের সামবা সেক্টরে সন্ত্রাসীদের সঙ্গে বিএসএফের গোলাগুলি হয়। একই সময়ে সন্ত্রাসীদের একটি আত্মঘাতী দল নাগরোটা সেনাঘাঁটিতে হামলা চালায়। বার্ষিক সংবাদ সম্মেলনে ডি জি শর্মা বলেন, সুড়ঙ্গ ব্যবহার করে হামাগুড়ি দিয়ে সন্ত্রাসীরা ভারতীয় অংশে প্রবেশ করে।

তিনি আরো বলেন, সীমানাপ্রাচীর নিয়ে কোনো সমস্যা হয়নি। বুধবার সকালে আমরা সীমান্তঘেঁষা মাঠে একটি সুড়ঙ্গ দেখি। এ মাঠে ফসল চাষ হয় এবং এর মাটি নরম। ২ ফুট চওড়া ও ২ ফুট উচ্চতার সুড়ঙ্গটি আন্তর্জাতিক সীমান্ত থেকে ৭৫-৮০ মিটার এবং সীমানাপ্রাচীর থেকে ৩৫ মিটার দূরে। তবে পাকিস্তানের কোন স্থান থেকে সুড়ঙ্গটি শুরু হয়েছে, তা জানা যায়নি।

মঙ্গলবার নাগরোটা সেনাঘাঁটিতে হামলাকারী তিন সন্ত্রাসী সেনাদের গুলিতে মারা যায়। তিনটি একে-৪৭, ২০টি ম্যাগাজিন, ৫১৭টি বুলেট, একটি ৮এমএম পিস্তল, ২০টি গ্রেনেড এবং একটি জিপিএস সেট ও খাদ্যসামগ্রী নিয়ে অনুপ্রবেশ করে সন্ত্রাসীরা।

ডিজি শর্মা আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন, এ ধরনের আরো সুড়ঙ্গ থাকতে পারে। এ বিষয়টি পাকিস্তানের নামের সঙ্গে উচ্চারিত হতে পারে। নাগরোটা ও চামলিয়ালে (সামবা সেক্টর) হামলার মধ্যে কোনো যোগসূত্র আছে কি না, তা খতিয়ে দেখতে হবে।

সীমান্তে সুড়ঙ্গ খুঁজে বের করার সহজ কোনো উপায় নেই বিএসএফের কাছে। তবে এ জন্য ইসরায়েল ও আইআইটি দিল্লির সঙ্গে যোগাযোগ করছে আমাদের বাহিনী।

সেপ্টেম্বর মাসে পাকিস্তানে ভারত সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালানোর পর থেকে দুই দেশের সীমান্তে উত্তেজনা আরো বেড়ে গেছে। সেই থেকে দুই দেশের মধ্যে গোলাগুলিতে পাকিস্তানের ১৫ সেনা নিহত হয়েছেন।

ভারতের কয়েকজন সেনাও নিহত হয়েছেন। বিএসএফ প্রধান বলেন, আন্তর্জাতিক সীমান্ত দিয়ে সন্ত্রাসীদের অনুপ্রবেশের ঘটনা নেই বললেই চলে। এসব হচ্ছে জম্মু ও কাশ্মীরে নিয়ন্ত্রণরেখা (এলওসি) ব্যবহার করে। এলওসির নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকে সেনাবাহিনী।

তথ্যসূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইন

"