তামিম তাণ্ডবে খুলনাকে হারাল চিটাগং

প্রকাশ : ২৯ নভেম্বর ২০১৬, ২১:২৩ | আপডেট : ২৯ নভেম্বর ২০১৬, ২১:৩৪

অনলাইন ডেস্ক
ADVERTISEMENT

৮টি চার এবং ১টি ছক্কা মেরে ৫৯ বলে ৬৬ রান করেন তামিম ইকবাল। খুলনার দেয়া ১৩২ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরু থেকেই মারমুখী ছিলেন চিটাগংয়ের অধিনায়ক। আজকের ম্যাচে গেইল ১৯ রান করে অাউট হলেও শক্তভাবে দলের হাল ধরেন তামিম। শেষ পর্যন্ত ৬৬ রানেই অপরাজিত থাকেন এই ব্যাটসম্যান। 

১৮ ওভার ৪ বলে ১৩৫ রান করে দলকে শক্ত অবস্থানে নিয়ে যান তামিম ইকবাল। তামিম, গেইল ছাড়াও জাহিরুল ইসলাম ২২ এবং মোহাম্মদ নবী অপরাজিত রান করেন। 

খুলনার পক্ষে শোভাগত হোম, কোপার এবং মোশারফ হোসেন নেন ১টি করে উইকেট। 

টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে তামিম-গেইলদের চিটাগং ভাইকিংসকে ১৩২ রানের টার্গেট দেয় খুলনা। জবাবে ব্যাট করতে নেমে স্বভাবসুলভ আক্রমণাত্বক ক্রিকেট শুরু করেন চিটাগংয়ের দুই ওপেনার তামিম ইকবাল এবং  ক্রিস গেইল। তবে জুটিতে ৩৯ রান আসতেই হোঁচট খায় চিটাগং। শুভাগত হোমের বলে ছক্কা মারতে গিয়ে জুনায়েদ খানের হাতে ধরা পড়েন গেইল। আউট হওয়ার আগে ১১ বলে ৩ চার এবং ১ ছক্কায় করেন ১৯ রান। এরপর দূর্ভাগ্যজনক রানআউটের শিকার হয়ে ফিরে যান এনামুল হক বিজয় (৩)।

নতুন ব্যাটসম্যান শোয়েব মালিককে নিয়ে ইনিংস গড়ার কাজ শুরু করেন অধিনায়ক তামিম। কিন্তু এতেও বিপত্তি! আবারও রানআউটের দূর্ভাগ্য এসে ভর করে চিটাগং দুর্গে। ফিরে যান শোয়েব মালিক (১)। এরপর মোশাররফ হোসেনের ঘূর্ণিতে নিকোলাস পুরানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান জাকির হাসান (৩)। জাকিরের বিদায়ের পর জহুরুল ইসলামকে নিয়ে ৩৭ রানের কার্যকরী একটি জুটি গড়েন তামিম। ৪৯ বলে তুলে নেন হাফ সেঞ্চুরি। জুটি জমে উঠতেই কুপারের বলে মাহমুদ উল্লাহর দারুণ এক ক্যাচে বিদায় নেন জহুরুল। তিনি ১৮ বলে ২ চার এবং ১ ছক্কায় ২২ রান করেন। তামিমের নতুন সঙ্গী হন আফগান অলরাউন্ডার মোহাম্মদ নবি। দুজনে মিলেই দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন।

এর আগে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৩ রানেই তাইবুর রহমানকে (১) বোল্ড করে খুলনার ইনিংসে ধসের শুরু করেন দুর্দান্ত পারফর্ম করা আফগান অলরাউন্ডার মোহাম্মদ নবি। স্কোরবোর্ড আর ৮ রান যোগ হতেই আবারও খুলনার উইকেট পতন। সাকলাইন সজীবের বলে বোল্ড হয়ে ফিরে যান অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান অলক কাপালী (৩)। ৩ রানের ব্যাবধানে আবারও ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে শুভাশীষ রায়ের বলে শোয়েব মালিকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন শুভাগত হোম (২)। স্কোর বোর্ডের এই করুণ দশায় দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন অধিনায়ক মাহমুদ উল্লাহ এবং ওপেনার রিকি ওয়েসেলস।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : তামিম ইকবাল