বরিশালকে হারিয়ে শীর্ষে খুলনা

প্রকাশ : ২৬ নভেম্বর ২০১৬, ০৯:০২

অনলাইন ডেস্ক
ADVERTISEMENT

বরিশাল বুলসকে ৬ উইকেটে হারিয়ে বিপিএলে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে ওঠল খুলনা টাইটান্স। শুক্রবার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে বরিশালের দেয়া ১২০ রানের লক্ষ্যমাত্রা ৮ বল হাতে রেখেই চার উইকেট হারিয়ে ছূঁতে সক্ষম হয় দলটি।

এর ফলে ৮ ম্যাচ থেকে ১২ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে ওঠে গেল খুলনা। অপরদিকে সমান ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার ছয় নম্বরে রয়েছে বরিশাল।

১২০ রানের সহজ লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে নেমে খুলনারও শুরুটা খুব ভালো হয়নি। মাত্র ১৬ রান তুলতেই হাসানুজ্জামান ও রিকি ওয়েসেলসের উইকেট হারায় দলটি। তবে এরপর শুভাগত হোম ও মাহমুদউল্লাহর দৃঢ়তায় সহজেই লক্ষ্যে পৌঁছতে সক্ষম হয় খুলনা।

ওপেনার তাইবুর রহমানকে নিয়ে তৃতীয় উইকেটে ৩৩ রান করেন শুভাগত। পরে মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে চতুর্থ উইকেটে যোগ করেন আরও ৫৭ রান। অবশ্য জয়ের কাছাকাছি গিয়ে দলীয় সর্বোচ্চ ৪০ রান করে আউট হয়ে যান শুভাগত। ৩৪ বল থেকে পাঁচটি চার ও একটি ছক্কার মারে এ রান করেন তিনি। শুভাগত ফিরে গেলেও ১৮.৪ ওভারে চার উইকেটে ১২০ রান করে জয়ের বন্দরে পৌঁছে খুলনা।

খুলনার পক্ষে মাহমুদউল্লাহ দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৬ রান করেন। ৩৫ বল থেকে এক চার ও দুই ছক্কার মারে ব্যক্তিগত ইনিংস সাজান তিনি। আর ২৫ বল থেকে দুই চারের মারে তাইবুর খেলেন ২১ রানের ইনিংস। বরিশালের রুম্মন রাইস ‍দুটি ও তাইজুল ইসলাম একটি করে উইকেট নেন।

এর আগে টস জিতে শুরুতে ব্যাটিং নেয় বরিশাল। নির্ধারিত ২০ ওভারের খেলা শেষে তাদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৫ উইকেটে ১১৯ রান।

বরিশাল শুরু থেকেই ব্যাটিংয়ে তেমন সুবিধা করতে পারেনি। মাত্র ২৪ রানের মধ্যে দুই ওপেনার দাওয়িদ মালান ও জীবন মেন্ডিসের উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে দলটি। এরপর শাহরিয়ার নাফিস ও অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন। তৃতীয় উইকেটে ৪২ রান করে তারা প্রাথমিক চাপ কিছুটা কাটাতে সক্ষম হন।

তবে রান তোলার গতি ছিল অনেকটা মন্থরই। ২৭ বল থেকে তিন চারের মারে ২৩ রান করে তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফেরেন নাফিস। দলীয় স্কোরে আর ৪ রান যোগ হতেই রান আউটের ফাঁদে পড়ে সাজঘরের পথ ধরেন নতুনভাবে ব্যাট হাতে নামা নাদিফ চৌধুরী। রানের খাতা খোলার পরই আউট হয়ে যান তিনি। দলীয় ৭৯ রানে অধিনায়ক মুশফিকও হাঁটেন একই পথে। তবে মুশফিকের স্ট্রাইক রেট কিছুটা বেশি ছিল। ২৬ বলে তিন চারের মারে ৩১ রান করন তিনি।

এ অবস্থায় শত রান পার করা নিয়েই শঙ্কা তৈরি হয় বরিশাল শিবিরে। তবে ষষ্ঠ উইকেটে থিসারা পেরেরা ও এনামুল হকের ৪০ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ভর করে শেষ পর্যন্ত ১১৯ রান করতে সক্ষম হয় বরিশাল। পেরেরা ১৯ বলে এক ছক্কার মারে করেন ১৭ রান। অপরদিকে ২০ বল থেকে এক চার ও এক ছক্কার মারে এনামুল করেন ২০ রান। এর বাইরে ওপেনার জীবন মেন্ডিস (১৪) কেবল দুই অঙ্কে পৌঁছতে সক্ষম হন। খুলনার পক্ষে জুনাইদ খান, শফিউল ইসলাম ও মোশরাফ হোসেন একটি করে উইকেট নেন।

শুক্রবার দিনের প্রথম ম্যাচে রংপুর রাইডার্সকে ১২ রানে হারিয়েছে রাজশাহী কিংস।