উবার নিয়ে জটিলতা কাটেনি

প্রকাশ : ২৯ নভেম্বর ২০১৬, ১৯:৪৫

অনলাইন ডেস্ক
ADVERTISEMENT

উবারের প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠক করে বিআরটিএ বলেছে, যদি ইন্টারনেটভিত্তিক এই পরিবহন সেবায় সাধারণ মানুষ উপকৃত হয়, তাহলে তারা আর আপত্তি জানাবে না। মোবাইল অ্যাপভিত্তিক ট্যাক্সি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান উবার সম্প্রতি বাংলাদেশে কাজ শুরুর পর শুক্রবার বিআরটিএ এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, এই অনলাইনভিত্তিক ট্যাক্সি সার্ভিস সম্পূর্ণ অবৈধভাবে পরিচালিত হচ্ছে ।

এর পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার দুপুরে উবার এর তিন প্রতিনিধি উৎসব আগরওয়াল, বিপ্লব শর্মা ও কাজী জুলকারনাইন বিআরটিএ কার্যালয়ে যান। প্রায় এক ঘণ্টা তারা কথা বলেন সংস্থাটির চেয়ারম‌্যান মো. নজরুল ইসলামের সঙ্গে। তবে বৈঠক করে বেরিয়ে যাওয়ার সময় উবার প্রতিনিধিরা সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা বলেননি।

পরে বিআরটিএ চেয়ারম‌্যানের সঙ্গে দেখা করেন মোটরবাইক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান স্যাম (শেয়ার এ মোটরসাইকেল) এর ব‌্যবস্থাপনা পরিচালক ইমতিয়াজ কাসেম। দুই প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আলোচনার পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন নজরুল ইসলাম। তিনি বলেন, উবারের কার্যক্রম নিয়ে বিআরটিএর কোনো আপত্তি নেই। তবে এ সেবা দিতে হলে অবশ্যই তা বাণিজ্যিক গাড়ি দিয়ে দিতে হবে। ব্যক্তিগত গাড়িকে এসবের বাইরে রাখতে হবে। তারা যদি বাণিজ্যকভাবে নিবন্ধিত গাড়ি দিয়ে সেবা দিতে চায় সেটাতে আমাদের কোনো আপত্তি নেই। এটা আমাদের প্রচলিত আইন-কানুনের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ হতে হবে।

উবারের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বিদ্যমান আইন পরিবর্তন করতে হলে বিআরটিএ সহায়তা করবে বলেও জানান তিনি। এটার জন্য আইনের কোনো পরিবর্তন করতে হলে সবার সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করেই তা করতে হবে। বিআরটিএ তার অবস্থান থেকে কাজ করবে, বলেন নজরুল ইসলাম।

আইন সংশোধনের আগে উবার কার্যক্রম চালাতে পারবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ব্যক্তিগত গাড়ির মাধ্যমে তারা এ সেবা দিতে পারবে না। এরপরও যদি তারা এটি করে তা ইলিগ্যাল হবে। সেটা দেখার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আছে। আমরা জানতে পারলে বিআরটিএর ভ্রাম্যমাণ আদালত সেখানে যাবে। উবার এর সেবা সম্পর্কে বিআরটিএর ধারণা এবং ঢাকায় প্রতিষ্ঠানটির কোনো ঠিকানা না থাকায় গণবিজ্ঞপ্তি দিতে হয়েছে বলে জানান সংস্থার চেয়ারম‌্যান।

গত ২২ নভেম্বর বাংলাদেশে কার্যক্রম শুরুর কথা জানায় উবার। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশে কার্যক্রম চালাতে অ‌্যাপ চালুর ঘোষণা দেওয়া হয়। স্যাম (শেয়ার এ মোটরসাইকেল) প্রতিনিধির সঙ্গে আলোচনার বিষয়ে বিআরটিএ চেয়ারম্যান বলেন, বর্তমান বাস্তবতায় মোটরসাইকেলে যাত্রী পরিবহনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় এসেছে। মোটরসাইকেল অপারেটরদের প্রস্তাব পেলে তা নিয়ে কাজ করা হবে। স‌্যাম এর ব‌্যবস্থাপনা পরিচালক ইমতিয়াজ কাসেম জানিয়েছেন, তাদের সেবার ব‌্যাপারে বিআরটিএ চেয়ারম‌্যান ইতিবাচক।

তিনি বলেন, আমরা বলেছি আমাদের এ সেবাটি বাণিজ্যিক কার্যক্রমের আওতায় পড়ে না। এটা ভাড়া নয়, মোটরসাইকেল শেয়ারিং। আমাদের মোটরসাইকেল সেবার বিষয়ে তিনি ইতিবাচক মনোভাব দেখিয়েছেন। উবারের মতই যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান স্যাম। গত মে মাসে বাংলাদেশে কার্যক্রম শুরুর ঘোষণা দেয় প্রতিষ্ঠানটি।