যারা বাংলাদেশের বিরুদ্ধে, তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চলবে : সৈয়দ আশরাফ

প্রকাশ : ১১ আগস্ট ২০১৬, ২০:৩২

অনলাইন ডেস্ক
ADVERTISEMENT

যারা বাংলাদেশের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবে, তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চলবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। সন্ত্রাসীদের মদদদাতাদের উদ্দেশ করে তিনি বলেছেন, হয় বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করবেন। আর পছন্দ না হলে চলে যান সন্ত্রাসীদের দেশ সৌদি আরবে, ইরাকে। চলে যান সিরিয়াতে সেখানে শত শত মানুষকে হত্যা করা হচ্ছে। এই বাংলার মাটিতে আপনাদের স্থান কোনো দিন হবে না। বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর ধানমন্ডি-৩২ নম্বর সড়কে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় সৈয়দ আশরাফ এসব কথা বলেন।

সৈয়দ আশরাফ বলেন, গুলশানের ঘটনাকে তিলকে তাল বানিয়ে সব জায়গায় প্রচার করা হয়েছে। যারা হত্যাকারী, টেররিস্ট তাদের জন্য মায়া কান্না! কেন হামলা হলো? কেনো জিম্মিদের রক্ষা করতে পারল না? যারা চিহ্নিত জঙ্গি—তারা বন্দুকযুদ্ধে মারা গেল। তাদের জন্য মায়া কান্না। তাদের মানবাধিকার রক্ষা হলো না বলা হচ্ছে। যারা আত্মঘাতী বোমাবাজ, যারা নিরীহ মানুষকে হত্যা করেছে, তাদের আবার মানবাধিকার কি? পত্রপত্রিকায় দেখি যারা মানুষকে হত্যা করেছে তাদের প্রতি মহব্বত বেশি। যারা হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে, তাদের প্রতি বিন্দুমাত্র সম্মান নাই। এই যে বাংলাদেশ; এখানে একটা শ্রেণিই আছে, যারা বাংলাদেশকে কোনো দিনই স্বীকার করে নাই, ভবিষ্যতেও করবে না। 

আশরাফ বলেন, শেখ হাসিনা সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। কোনো সন্ত্রাসী বাংলার মাটিতে থাকবে না। শেখ হাসিনা একবার যদি কোনো প্রতিশ্রুতি দেয়, সেই প্রতিশ্রুতি কোনো দিন লঙ্ঘন করেন না। সেই দিকে তিনি এগিয়ে যাচ্ছেন। এই সন্ত্রাসীরা বাধার সৃষ্টি করতে পারবেন না। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এই বাংলাদেশ একদিন সোনার বাংলায় রূপান্তরিত হবেই। 

জঙ্গিদের জন্য যারা মায়া কান্না করে তাদের হুঁশিয়ারি উচ্চারণ সৈয়দ আশরাফ আরও বলেন, এই দেশে দুই ধরনের ব্যবহার চলবে না। একবার সন্ত্রাসীদের মায়াকান্না করবেন। আরেকবার সন্ত্রাসীদের মদদ দেবেন, এটা বাংলাদেশে হতে পারে না।

স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওছারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ সোহেল রানা, সাজ্জাদ সাকিব বাদশা প্রমুখ। আলোচনা সভা পরিচালনা করেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ দেবনাথ।