ব্রেকফাস্টে খান আইসক্রিম!

প্রকাশ : ২৭ নভেম্বর ২০১৬, ১২:১২ | আপডেট : ২৭ নভেম্বর ২০১৬, ১২:৩৩

অনলাইন ডেস্ক
ADVERTISEMENT

আইসক্রিম খেতে কে না ভালোবাসে? ওয়ান স্কুপে মন ভরে না, টু স্কুপে স্বাদ মেটে না। আইসক্রিম পার্লারগুলিতে তাই সব ঋতুতেই ভিড় এখন। ব্ল্যাক ফরেস্ট, ব্রাউনি উইথ ভ্যানিলা আইসক্রিম, ব্ল্যাক কারেন্ট, স্ট্রবেরি, বাটারস্কচ... উফফ... নামগুলো শুনলেই জিভে পানি চলে আসে। শরীরে ফ্যাট জমবে-এই ভয়ে অনেকেই খান না। তবে আইসক্রিমপ্রেমীদের জন্য একটা সুখবর রয়েছে।

টকিও কিওরিন ইউনিভার্সিটির জাপানিজ প্রফেসর ও গবেষক ইউশিহিকো কোগা দাবী করেছেন, প্রতিদিনের ব্রেকফাস্টে রাখুন আইসক্রিম। তাতে নাকি কর্মক্ষেত্রে প্রতিদিন সাফল্যের সঙ্গে উন্নতি করবেন। আগের তুলনায় আপনি অনেক স্মার্ট হয়ে উঠবেন। 

কোগার কথায়, একজন পুরুষ বা নারী, প্রতিদিন কাজের জায়গা ছাড়াও অবসরেও স্ট্রেস আর কাজের চাপের মধ্যে থাকতে থাকতে মস্তিষ্ক আর নতুন কিছু ভাবতে পারছে না। মস্তিষ্ককে যদি সতেজ ও সক্রিয় রাখতে হয়, অফিসে যদি বসের নজরে আসতেই হয়, তাহলে ঘুম থেকে ওঠার পরই নিজের পছন্দের আইসক্রিম খাওয়া মাস্ট! দুটি দল গঠন করে তিনি সমীক্ষাও চালিয়েছিলেন। একটি দলকে প্রতিদিন ব্রেকফাস্টে আইসক্রিম দেওয়া হত। অন্যদের পাতে আইসক্রিম দেওয়া হত না। বেশ কিছুদিন পর, দুটি দলের মধ্যে কম্পিউটারে মেন্টাল পাজলের সমাধান করতে দেওয়া হয়। দেখা যায়, যে দল প্রতিদিন সকালে আইসক্রিম খেয়েছে, সেই দল খুব তাড়াতাড়ি পাজলগুলির উত্তর দিয়ে দিচ্ছেন।

তিনি রিপোর্টে লিখেছেন, প্রতিদিন সকালে, আইসক্রিম খেলে ব্রেনের মধ্যে উচ্চ-ক্ষমতাসম্পন্ন আলফা তরঙ্গ প্রবাহিত হয়। কোগার কথায়, আইসক্রিমের বদলে যদি ঠাণ্ডা পানি খাওয়া হয়, তাতেও রেজাল্ট ভালো হবে। তবে আইসক্রিম খাওয়ার তুলনায় কিছুই নয়। কোগার এই গবেষণায় বাধ সেধেছে ব্রিটিশ নিউট্রিশনিস্টরা। তাদের কথায়, ব্রেকফাস্টে আইসক্রিম খাওয়া মানে তেল খাওয়ার সমান। তবে ব্রিটিশ নিউট্রিশনিস্ট শার্লট স্ট্রিংলি জানিয়েছেন, ঘুম থেকে উঠে আইসক্রিমের সঙ্গে পাতে থাকুক ফল, স্ক্র্যাম্বেলড এগ, সালমন, টোস্ট, লো সুগার ব্রেকফাস্ট সিরিয়ালস।