বন্ধুতা ভোলা যায় না

প্রকাশ : ১১ আগস্ট ২০১৬, ১২:০১ | আপডেট : ১১ আগস্ট ২০১৬, ১২:১৬

অনলাইন ডেস্ক
ADVERTISEMENT

প্রকৃত বন্ধু হলো সেই যে অন্য বন্ধুর বিপদে পাশে থাকে, ডাকলেই সাড়া দেয়। একজন ভালো বন্ধুই পারে বন্ধুর পথকে মসৃণ করে তুলতে। আনন্দে রাখতে পারে হাসি তামাসায় সব সময় বন্ধু। ভালো বন্ধুর পাশে থেকে সবকিছু শেয়ার করা যায়। বন্ধুর কান্নার জন্য, তার ভেঙে পড়াকে প্রশ্রয় দেবার জন্য, নারীর ভালোবাসায় টক্কর খাওয়া বন্ধুর সমস্ত শূন্যতা ধরবার জন্যে ভালো বন্ধু দরকার।

নানা ঘাটে, নানান ঢেউয়ে ভেসে ভেসে গেছে কতো বন্ধু। বন্দরে বন্দরে ঘুরে ঘুরে কত বন্ধু পেয়েছে অনেকে। স্রেফ সম্পদ সেই বন্ধুত্ব। সোনালি সম্পদ পুরোনো হয় না। বন্ধুত্ব একটা অর্জন। বন্ধুত্ব বলে-কয়ে হয় না কারো সঙ্গে। ‘আপনি', ‘তুমি'-র বন্ধুত্বও আমাদের কম নয়। আমাদের বন্ধুত্বের পাটাতনে নারী-পুরুষ আলাদা কিছু নেই।'' তবে এ বিষয়ে আলবেয়র কামুর একটা কোটেশন বা উদ্ধৃতি দেওয়ার লোভ সামলাতে পারছি না। কামু বলছেন, ‘আমার সামনে দিয়ে হেঁটো না। আমি তোমায় অনুসরণ না করতেও পারি। আমার পিছনে এসো না। আমি নেতৃত্ব দেওয়ার মত কেউ নই। আমার পাশে পাশে হাঁটো। এসো, আমরা বন্ধু হয়ে যাই।'

ছেলেবেলা! কিংবা মেয়েবেলা! যা-ই বলি না কেন স্কুল শুরুর দিনগুলোতে আমাদের অনেকেরই নতুন অভিজ্ঞতার নাম হয়তো একটাই, বন্ধুত্ব! পরিবারের গণ্ডি ছাড়িয়ে চেনা জগত্টা যে এক লাফে অনেক দূর চলে গিয়েছিল সে তো বন্ধুদের হাত ধরেই। জীবনের পথে হাঁটতে হাঁটতে আজ যে যেখানেই থাকি না কেন চলার পথে বন্ধুত্ব নামের এই পাথেয়টির তুলনা বোধ হয় আর কিছুর সঙ্গেই চলে না। এ এমনই বিষয় যেন কিছু না থাকলেও বন্ধুত্ব থাকলে চলে আবার সব থাকলেও বন্ধুত্ব ছাড়া চলে না। যে মুখ হারিয়ে গেছে, তাকে যদি নতুন করে ফিরে পাওয়া যায়? যে উত্তাপ, মনে হয়েছিল হয়তো বা নিভে গেছে, সে যদি আবার ফিরে আসে বুক জুড়ে? হয় কী এমন কিছু? হয়, হতে পারে, বন্ধুত্বের দিনে।

বন্ধুত্ব কিসে হয়? কিভাবে একটি সুন্দর বন্ধুত্বের বন্ধনে জড়ানো যায়? বন্ধুত্বের পদবী বা সময় কত? আজও মেলেনি যে প্রশ্নের উত্তর। না বন্ধুত্বের সত্যিই কোনও পদবী হয় না... হয় না কোনও এক্সপায়ারি ডেট! শুধু থাকে একে অপরের প্রতি নিঃস্বার্থ ভালোবাসা এবং ভরসা। আর অটুট বিশ্বাস।বন্ধুর সঙ্গে মিলে, বন্ধুর কাঁধে কাঁধ হাতে হাত রেখেই তো দুনিয়া দেখতে হবে।

তবে এটাও ঠিক,হাত বাড়ালেই সবাই বন্ধু হয় না। তাহলে শর্তের সব গন্ডি পেরিয়ে বন্ধু হওয়া যায় কখন? সব থেকে খারাপ মূহুর্তেও যখন তারা নির্দ্বিধায় আমাদের পাশে থাকেন। শুধু তাই নয়, যখন আমরা নিজেরাই নিজেদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিই, তখন তাঁরাই শক্ত করে হাতটা ধরে থাকেন...

ভুল করলে চোখে আঙুল দিয়ে সেটা ধরিয়ে দিতে বিন্দুমাত্র পিছ-পা হন না তারা। তাতে কিছুদিনের জন্যে কথা বলা বা মুখ দেখাদেখি বন্ধ থাকলেও কিচু আসে যাই না! আপনার যে কোনও প্রাসঙ্গিক বা অপ্রাসঙ্গিক কথা তারা ধৈর্য্য ধরে শোনেন। সময়? সে ভোর চারটেই হোক না... তাতে কী!

রিয়্যালিটি চেক বলতে যা বোঝায়, এরা ঠিক তাই। মিথ্যে প্রশংসা নয়, সত্যির মুখোমুখি আপনাকে টেনে এনে দাঁড় করাতে পারেন একমাত্র এরাই। আপনার সোশাল স্টেটাস নয়, এদের কাছে প্রায়রিটি শুধুমাত্র নিখাদ বন্ধুত্ব।

যতই চড়াই-উত্‍‌রাই দিয়ে আপনাদের সম্পর্ক যাক না কেন, এক ডাকেই সব মান অভিমান যেখানে নিমেষেই উধাও হয়ে যায়, প্রকৃত বন্ধুত্ব তো সেটাই...একা একা খুব একলা কালে / তুমি আমি মিলে আমরা হলে / জ্বলতে পারি পথের সুরে / সূর্যরাঙ্গা পরানপুরে। / ডাকছি তোমায় আপন সুরে / ধুলায় ধুলায় বেলা বয়ে যায়।"