আরামদায়ক অন্তর্বাস পরুন

প্রকাশ : ১১ আগস্ট ২০১৬, ১১:৩৪ | আপডেট : ১১ আগস্ট ২০১৬, ১২:৫১

অনলাইন ডেস্ক
ADVERTISEMENT

নারীদের জন্য ফ্যাশন যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি তাদের উচিত নিজেদের বক্ষবন্ধনী বা অন্তর্বাস ব্যবহারেও সচেতন হওয়া। নারীদের বিশেষ এই পোশাকটি ছোট হলেও, অত্যন্ত উপকারী ও প্রয়োজনীয় পোশাক। তাই অন্তর্বাস ব্যবহারের ক্ষেত্রে অবশ্যই কিছু সচেতনতা প্রয়োজন।

সুন্দর ও আকর্ষণীয় বক্ষের অধিকারিণী হতে চান সকল নারীই। বক্ষযুগল সুন্দর না হলে নারীর নারীত্ব বিকশিত হয় না। সেই কারণে এর যত্নে স্বাস্থ্যকর ও আরামদায়ক অন্তর্বাস প্রয়োজন। ১০০ বছর আগে থেকেই সারাবিশ্বের প্রায় সমস্ত নারীই বক্ষবন্ধনী ব্যবহার করে আসছেন। তবে বর্তমানে সময়ের পরিবর্তনের সঙ্গে ব্রায়ের ডিজাইন পাল্টেছে অনেকটাই।

পুশ আপ ব্রা:
নিজের স্তনযুগল নিয়ে যারা সন্তুষ্ট নন বা অল্পবয়সী মেয়েরা নিজেদের সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলতে পুশ আপ ব্রা বা ভেতরে ফোম দেওয়া ব্রা ব্যবহার করে থাকেন। যেহেতু নারীদের দিনের প্রায় বেশিরভাগ অংশই এটি ব্যবহার করতে হয় তাই এটি কতটা স্বাস্থ্যসম্মত তা জেনে পরা প্রয়োজন।

সদ্য মায়েদের জন্য বিশেষ ব্রা:
সদ্য যারা মা হয়েছেন, তাদের জন্য বিশেষ ধরনের ব্রা রয়েছে। শিশুকে মায়ের দুধ খাওয়ানোর সময় যাতে মা এবং শিশুর কোন ধরনের অসুবিধা না হয় সেই কারণেই মায়েদের বিশেষ ধরনের এই বক্ষবন্ধনী ব্যবহার করা উচিত। এতে শিশুকে খাওয়াতে মায়ের কোন অসুবিধে হবে না।

ব্রা কেনার নিয়মকানুন:
বাজারে বিভিন্ন ধরণের ব্রা পাওয়া যায়। বিশেষজ্ঞদের মতে, শুধুমাত্র রঙ, ডিজাইন আর দাম দেখে নয় অন্তর্বাসটি স্বাস্থ্যের পক্ষে কতটা উপকারী তা জানাও প্রয়োজন। বক্ষবন্ধনীতে ব্যবহৃত কাপড়ের গুণগত মানও দেখে নিতে হবে। অনেকক্ষেত্রে স্তনের আকারে সুন্দর করতে ব্রাতে পাত ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এটি আপনারে ক্ষেত্রে ক্ষতি বা অ্যালার্জির কারণ হতে পারে কি না সে বিষয়েও আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে।

অনেক সময় অনেকে স্তন বড় বলে নির্দিষ্ট সাইজের চেয়ে ছোট ব্রা পরেন। এটি উচিত নয়। কারণ এটি দেখতেও যেমন ভাল লাগে না, তেমনি এটি স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রেও ক্ষতিকর। এছাড়া বেশি টাইট বক্ষবন্ধনী ব্যবহার করলে অনেকের শ্বাসকষ্টের সমস্যাও হতে পারে।