অফিসে তাড়াতাড়ি পদন্নোতি হয় যে পোশাক পরলে

প্রকাশ : ১০ আগস্ট ২০১৬, ১৭:০৫

অনলাইন ডেস্ক
ADVERTISEMENT

কথায় বলে, ‘ফার্স্ট ইমপ্রেশন ইজ দি লাস্ট ইম্প্রেশন’। কথাটা ষোলোআনা সত্যি। আপনার ব্যক্তিত্বের অনেকটাই ধরা পরে পোশাকে। তাই পোশাক হওয়া চাই টিপটপ। অফিসের ক্ষেত্রে পোশাক ব্যাপারটা খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয়। ঠিকঠাক পোশাক না পরলে অনেক সময় উন্নতিতেও সমস্যা হয়। এমন কোনও পোশাক পরা উচিত না, যেটা ভুল বার্তা বহন করে । 

তাই পুরুষ ও নারী, দু পক্ষের জন্যই দেয়া হলো কিছু জরুরি টিপস। 

ছেলেদের পোশাক 

গিলে করা শার্ট, প্যান্ট, ম্যাচিং টাই, মানানসই ব্লেজার পরতে হবে। জুতো যেন অবশ্যই পালিশ করা থাকে। শু পরাই ভালো। স্নিকার, বুট, হাওয়াই বা কিটো জাতীয় ক্যাজুয়াল জুতো একেবারেই পরবেন না। শনিবার বেশির ভাগ কর্পোরেট অফিসেই ক্যাজুয়াল পোশাক পরার ছাড়পত্র মেলে। সেদিন টি-শার্ট, ডেনিম, পাঞ্জাবি পরতে পারেন।

মেয়েদের পোশাক 

পোশাকে মেয়েদের যেহেতু ভ্যারিইটি বেশি, তাই নিষেধাজ্ঞাও বেশি। অনেক ধরনের জামা অফিসে পরা যায় না। যেমন ফ্রক কাটিং ড্রেস, হট প্যান্ট, ছোটো স্কার্ট, স্প্যাগেটি টপ, অফ শোল্ডার, হল্টার নেক, টাইট কোনও টপ অফিস প্রেমিসে নট অ্যালাউড। বড় গলার কুর্তি, সালোয়ার, টপ, ব্লাউজ়ও চলবে না। এ ধরনের কিছু পরলে সঙ্গে স্টোল বা শ্রাগ পরাটা মাস্ট। বোট নেক টপ বা কুর্তি অফিসের জন্য সবচেয়ে ভদ্র ড্রেস। ক্র নেকওয়ালা পোশাকও পরতে পারেন। যথেষ্ট স্টাইলিশ লাগবে। পায়ে ফ্লিপফ্লপ পরবেন না। হাওয়াই চটিজাতীয় জুতো এড়িয়ে চলবেন। অন্যান্য সব ধরনের জুতোই পরতে পারেন।