আজ শহীদ ডা. মিলন দিবস

প্রকাশ : ২৭ নভেম্বর ২০১৬, ১১:০৫

অনলাইন ডেস্ক
ADVERTISEMENT

শহীদ ডা. মিলন দিবস আজ । ১৯৯০ সালের ২৭ নভেম্বর তৎকালীন সামরিক স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের চূড়ান্ত পর্বে সামরিক জান্তার পেটোয়া বাহিনীর গুলিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের সন্নিকটে নিহত হন ডা. শামসুল আলম খান মিলন।
 
একজন মেধাবী ছাত্র, পেশাগত সততা, দক্ষতা, সাংগঠনিক কর্মতৎপরতায় ডা. মিলন ছিলেন অপ্রতিদ্বন্দ্বী। ডা. মিলন তৎকালীন বিএমএর নির্বাচিত যুগ্ম সম্পাদক ছিলেন। 
ডা. মিলনের আত্মত্যাগের কয়েক দিনের মধ্যেই গণ-আন্দোলন ঐতিহাসিক গণ-অভ্যুত্থানে রূপ নেয় এবং স্বৈরাচার সরকারের পতন ঘটে। নিশ্চিত হয় গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার পথ।
 
রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিবসটি উপলক্ষে পৃথক বাণী দিয়েছেন। দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন রাজনৈতিক এবং সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ডা. মিলনের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ, বিশেষ মোনাজাত এবং টিএসসির সামনে মিলন স্মৃতি চত্বরে শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন। মিলনের মা সেলিনা আখতার এসব কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করবেন বলে জানা গেছে।
 
আওয়ামী লীগ এ উপলক্ষে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। কর্মসূচির অংশ হিসেবে দলটি রোববার সকাল ৭টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ চত্বরে ডা. শামসুল আলম খান মিলনের সমাধিতে ফাতেহা পাঠ, বিশেষ মোনাজাত ও শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন করে।
 
বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি মিলন দিবসে সকাল ৭টা ৩০ মিনিটে ঢাকা মেডিকেল কলেজে মিলনের কবরে এবং সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে টিএসসির স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে।
 
জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) রোববার এ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউর শহীদ কর্নেল তাহের মিলনায়তনে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেছে।