খাদিজার শারীরিক অবস্থার আরো উন্নতি

প্রকাশ : ২৬ নভেম্বর ২০১৬, ১০:০৪

অনলাইন ডেস্ক
ADVERTISEMENT

কলেজছাত্রী খাদিজা বেগম নার্গিসের শারীরিক অবস্থার উন্নতির খবর দিয়েছে তার পরিবার। হামলার পর দেড় মাসের বেশি সময় ধরে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খাদিজার হাসপাতালের বিছানায় বসা একটি ছবি প্রকাশ পেয়েছে ফেসবুকে।

খাদিজার ভাই শরনান হক শাহীন বৃহস্পতিবার নিজের ফেসবুক পাতায় ওই ছবি প্রকাশ করেন। পরে খাদিজার উপর হামলার বিচার দাবিতে খোলা বিভিন্ন ফেসবুক পাতায়ও ছবিটি শেয়ার করা হয়। 

খাদিজার বাবা মাসুক মিয়া জানান, হাসপাতালের একজন কর্মচারী ছবিটি তুলে শাহীনকে পাঠিয়েছিল। পরে শাহীন সেটা ফেসবুকে দিয়েছে।

গত ৩ অক্টোবর সিলেটের এমসি কলেজ কেন্দ্রে স্নাতক পরীক্ষা দিয়ে বের হয়ে হামলার শিকার হন সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের স্নাতক (পাস কোর্স) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী খাদিজা। শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহসম্পাদক বদরুল আলমের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তার মাথার খুলি ভেদ করে মস্তিষ্কও জখম হয়।

ঘটনার পর রাজধানীতে এনে প্রথম দিকে খাদিজাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। তিন দফা অস্ত্রোপচার হয়। অবস্থার উন্নতি হওয়ায় গত ১৩ অক্টোবর তার লাইফ সাপোর্ট খোলা হয়। এর সাতদিনের মাথায় খাদিজাকে হুইল চেয়ারে করে কিছুক্ষণ ঘোরানো হলেও সে সময় তিনি কাউকে চিনতে পারছিলেন না বলে তার স্বজন ও চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন। 

তবে এখন খাদিজার অবস্থা বেশ ‘ভালোর দিকে’ জানিয়ে তার বাবা মাসুক বলছেন, আগামী সোমবার তাকে পক্ষাঘাতগ্রস্তদের পুনর্বাসন কেন্দ্রে (সিআরপি) নেয়ার কথা রয়েছে। খাদিজা এখন কথাবার্তা বলতে পারতেছে। বাম হাত, বাম পা এখনও অবশ আছে। বাম হাতে ব্যান্ডেজ আছে। মাথার ব্যান্ডেজ খোলা আছে। মোটামুটি খাওয়া-দাওয়াও করতেছে। কথাবার্তাও ৮০ পার্সেন্টের মতো বলতে পারে।

শুক্রবার একটি টেলিভিশনকে খাদিজা বলেন, বাড়ি গিয়ে লেখাপড়া করব। আমি আশা করেছি, একজন ব্যাংকার হব। আমার বাবা-মাকে দেখাশোনা করব। ছোট ভাইকেও দেখব। আমি চাই, আমি যে অবস্থায় পড়েছি অন্য কেউ যাতে আমার মতো এ অবস্থায় না পড়ে। সবাই সবার মতো লেখাপড়া করুক। ওরা ওদের স্বপ্ন পূরণ করুক।